বিএনপি আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ সংগঠন : ওবায়দুল কাদের

0
29

সালমা আক্তার কণা সোনারগাঁও প্রতিনিধি : সড়ক পরিবহন, সেতু মন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক  ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির গঠনতন্ত্র থেকে সপ্তম ধারা বাদ দিয়ে তারা নিজেদের আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ সংগঠন হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন।

গতকাল শনিবার সকালে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে মেঘনা দ্বিতীয় সেতুর সুপার স্টাকচার কাজের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, গত ৮ ফেব্রুয়ারীর চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলার যে রায় আদালত দিয়েছে এ রায় বাংলাদেশের দুর্নীতি প্রবণ রাজনীতিকদের জন্য সর্তক বার্তা। রায় যে যেভাবেই দেখুন না কেন আপনারা, আমরা মনে করি দুর্নীতির বিরুদ্ধে আদালত যে রায়টি দিয়েছেন এ রায় বাংলাদেশের দুর্নীতি প্রবণ রাজনীতিকদের জন্য সর্তকবার্তা। আমি এভাবেই বিষয়টিকে দেখছি। ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, পলিটিক্যাল বক্তব্য ভাল ভাল কাজকে ঢেকে দিচ্ছে। এ তিনটি সেতু নির্মাণ দেশের ১৬ কোটি মানুষের জন্য খুবই গুরুত্বর্পূণ। পলিটিক্যাল বক্তব্য দিয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করা আমাদের  মুখ্য কাজ নয়। দেশের উন্নয়নটা আমাদের কাছে মুখ্য। রাজনীতি আছে, থাকবে। রাজনৈতিক দল আছে, দেশে নির্বাচন আছে, এসব জেল জুলুমও থাকে, রাজনীতি করলে জেল জুলুম তো আছে এগুলো সহ্য করেই এখানে ক্ষমতায় এসেছি। আমাদের নেত্রীকেও জেল খাটতে হয়েছে। আমার নিজেরও চার বছর জেল জীবন। এগুলোই আমাদের জীবন। জেল যাওয়াটা রাজনীতির অনুসঙ্গ বলে তিনি এ মন্তব্য করেন। ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের যানজট নিরসনের জন্য দ্বিতীয় কাঁচপুর, মেঘনা ও মেঘনা গোমতী এ তিনটি নতুন ফোর লেন সেতুর নির্মাণ করা হচ্ছে। যেটা আগে ছিলো দুই লেনের সেতু। ফোর লেন রাস্তা। যে কারনে রাস্তায় যানজট হতো। এ সময় মন্ত্রী সেতু নির্মাণ কাজে নিয়োজিত জাপানী নাগরিকদের প্রশংসা করে বলেন, এ তিনটি সেতু নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার নির্ধারিত সময় ছিলো ২০১৯ সালের জুন মাস। কিন্তু জাপানীদের তৎকর্ম পরিকল্পনা ও আধুনিক প্রযুক্তির সরঞ্জামাদি ব্যবহারের কারনে সেখানে এখন টার্গেট হচ্ছে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাস। অর্থাৎ ছয়মাস আগেই এ সেতু তিনটি নির্মাণ কাজ শেষ হবে। তাতে মনে হয় চলতি বছরের নভেম্বর মাসেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা সেতু তিনটি উদ্বোধন করতে পারবেন। তিনি বলেন, ছয় মাস সময় আগে সেতু তিনটি নির্মাণ হওয়ার কারনে স্টিমেটেট কস্টের চেয়ে সাতশ কোটি টাকা সাশ্রয় হচ্ছে। এসময় মন্ত্রীর সঙ্গে সেতুর প্রকল্প পরিচালক সাইদুল হক, দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদেও চেয়ারম্যান মেজর (অব:) মোহাম্মদ আলী সুমন, সেতু মন্ত্রনালয়ের গনসংযোগ কর্মকর্তা ওয়ালীদ হোসেন, নারায়নগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য মোস্তাাফিজুর রহমান মাসুমসহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here