ময়মনসিংহে হকার্স মার্কেটে ভয়াবহ আগুন, কয়েক কোটি টাকার ক্ষতি

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি : বাংলাদেশের ময়মনসিংহ শহরের প্রাণকেন্দ্র গাঙ্গিনারপাড় হকার্স সুপার মার্কেটে লাগা আগুন সাড়ে তিন ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে এসেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে ফায়ার সার্ভিসের ৭টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এর আগে সকাল ৭টা ৪০ মিনিটে এ অগ্নিকাÐের সূত্রপাত হয়।ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন কর্মকর্তা আব্দুর রহমান জানান, হকার্স মার্কেটে প্রায় তিন শতাধিক দোকান রয়েছে। খবর পেয়ে ময়মনসিংহ, ত্রিশাল, মুক্তাগাছা ও ঈশ্বরগঞ্জসহ মোট ৭টি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। অনেকক্ষণ চেষ্টার পর সকাল সোয়া ১১টার দিকে আগুন নেভানো হয়। ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিসের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক শহিদুল হক বলেন, আশেপাশে পানির উৎস না থাকায় তাদের কাজে সমস্যা হয়েছে। সেই সঙ্গে সংকীর্ণ মার্কেটে ঠাসাঠাসি করে থাকা পণ্যে বোঝাই দোকানগুলোর আগুন নেভাতে বেগ পেতে হয়েছে অগ্নিনির্বাপক বাহিনীর কর্মীদের।  বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ আগুন লাগতে পারে বলে তিনি জানান।ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, আগুনের লেলিহান শিখায় তাদের সব স্বপ্ন পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ঈদের মাত্র দিন দশেক আগে ভরা মওসুমে এই অগ্নিকাÐে বহু দোকান পুড়ে যাওয়ায় পথে বসার উপক্রম হয়েছে দোকান মালিকদের।  সামনে ঈদের আগে তাদের জীবনের এমন সর্বনাশ মেনে নিতে না পেরে হাউমাউ করে কাঁদছেন ব্যবসায়ীরা।হকার্স মার্কেট দোকান-মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুল হক জানান, সকাল ৭টার দিকে আমাকে স্থানীয়রা মোবাইলে জানায় যে মার্কেটে আগুন লেগেছে। মার্কেটের ভেতরে থাকা কোনও মালামাল ব্যবসায়ীরা বের করতে পারেনি। প্রায় দেড়শ’টি দোকান আগুনে পুড়ে গেছে। ঈদ উপলক্ষে সেখানে কোটি কোটি টাকার মালামাল ছিল। ময়মনসিংহ হোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার শরীফ আহমেদ বলেন, “ঈদ সামনে রেখে সব দোকানেই বাড়তি পণ্য মজুদ করা ছিল। ব্যবসাও জমে উঠেছিল। রাতে বিক্রি শেষ করে তারা চলে যায়। সকালে দোকান খোলার আগেই আগুন লেগেছে। ক্ষতি তো মনে হয় কয়েক কোটি টাকা হবে। দোকান মালিকদের পক্ষে এই ক্ষতি পোষানো সম্ভব না। সরকারিভাবে তাদের সহযোগিতা করা দরকার।”এদিকে, অগ্নিকাÐের পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস। তিনি বলেন, পুড়ে যাওয়া দোকানের মালামালের ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয় করার পর ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আমি কথা বলব। আগামী দুই দিনের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক সহায়তা ও সহজ শর্তে ঋণ পাওয়ার ব্যবস্থা করব।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here