আওয়ামী লীগ ধানমন্ডি কার্যালয়ে হামলা

0
37

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, শিক্ষার্থী নামধারী কিছু দুর্বৃত্ত গতকাল বিকেলে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডি কার্যালয়ে হামলা চালিয়েছে। ‘বিএনপি-জামায়াত একটি অরাজনৈতিক আন্দোলনকে নোংরা পথে পরিচালিত করতে এ হামলা চালিয়েছে বলে জানান তিনি। হামলার পর পরই আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের আরো বলেন, ‘এদের হামলার ধরণ দেখেই বুঝা যায় এটি একটি পরিকল্পিত হামলা। তাদের কারো কারো হাতে আগ্নেয়াস্ত্রও ছিল। তারা অপকর্ম করে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর দায় চাপাতে চাচ্ছে। আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিয়ে এখন শংকিত।’
এ হামলায় আওয়ামী লীগের ১৭ নেতাকর্মী আহত এবং এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানান তিনি। সংবাদ সম্মেলনে দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলনের মধ্যে রাজনৈতিক বিষবাষ্প ঢুকিয়ে দেশের একটি গোষ্ঠী বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাচ্ছে। সেই অপশক্তি আন্দোলনকে উসকে দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে পুঁজি করে কোন সংস্থা বা গোষ্ঠী ধানমন্ডি আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে হামলা করেছে। হামলায় ১৭ জন আহত হয়েছে। এসময় তিনি সাংবাদিকদের হাসপাতালে দলীয় নেতা কর্মীদের দেখতে যেতে অনুরোধ করেন। গতকাল দুপুরে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ আছে, এই ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের ওপর কোনো দমনমূলক পদক্ষেপ নেওয়া যাবে না। শেষ পর্যন্ত আমরা ধৈর্য ধরে যাব। আমাদের বিশ্বাস দুই একদিনের মধ্যে হয়ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ কোনো দমনমূলক পদক্ষেপ এই ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের ওপর নেওয়া যাবে না। সেই কারণে পুলিশ নানাভাবে অপদস্থ এবং হয়রানির শিকার হয়েও রাজনৈতিক অনুপ্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে ধৈর্যের পরাকাষ্ঠা দেখাচ্ছে। রাজনৈতিক অপশক্তি মদদ দিচ্ছে, সেটা আমরা খুব কাছ থেকে লক্ষ্য করছি, আমাদের বিভিন্ন সংস্থা লক্ষ্য করছে। শেষ পর্যন্ত আমরা ধৈর্য ধরে যাবো। আমাদের বিশ্বাস ছাত্র-ছাত্রীরা আস্তে আস্তে ঘরে ফিরতে শুরু করেছে। আর দুই একদিনের মধ্যে হয়ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে।
আমরা সবকিছু লক্ষ্য করছি, আন্দোলনের ভিতরে অনুপ্রবেশ করে যারা অপকর্ম করছে। তাদের ব্যাপারে পুলিশ, গোয়েন্দা সংস্থা তথ্য সংগ্রহ করছে, তাদের গতিবিধি আমরা দলীয়ভাবে দূর থেকে লক্ষ্য করছি। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলনের মধ্যে রাজনৈতিক বিষবাষ্প ঢুকিয়ে দেশের একটি গোষ্ঠী বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাচ্ছে। এরা দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের অপপ্রয়াসে লিপ্ত হয়েছে। কাজেই এই শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলনে যারা রাজনীতির রং ছড়াতে চায়, তাদের ব্যাপারে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সতর্ক থাকার অনুরোধ করেন কাদের।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here