সম্পাদক পরিষদের সমালোচনায় জয়

0
51

নিউজ ডেস্ক: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কিছু অংশ নিয়ে আপত্তি তোলায় সংবাদপত্রের সম্পাদকদের একটি সংগঠন সম্পাদক পরিষদের কঠোর সমালোচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। ওই আইন নিয়ে সমালোচনার জবাব দিতে গিয়ে এক ফেইসবুক পোস্টে তিনি লিখেছেন, পরিষ্কারভাবেই, তাদের নৈতিকতা বলে কিছু নেই। বস্তুতঃ সম্পাদক পরিষদ বলতে চায়, তাদেরকে সরকারের বিরুদ্ধে নোংরা, মিথ্যা প্রচারণা চালাতে দিতে হবে এবং সত্য অবলম্বন না করেই তাদের অপছন্দের রাজনীতিকদের সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করতে দিতে হবে। তিনি প্রশ্ন রেখেছেন, সম্পাদকরা যদি শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে ‘এমন পরিকল্পনা’ করেন, তাহলে দেশের ভবিষ্যত কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে। জয় তার পোস্টে সম্পাদক পরিষদের নাম ধরে সমালোচনা করেছেন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫ ধারা নিয়ে আপত্তির জবাব দিতে গিয়ে। তত্ত¡াবধায়ক সরকারের সময়ে ‘গোয়েন্দা সংস্থার দেওয়া তথ্য যাচাই না করে’ ডেইলি স্টারে শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে ‘দুর্নীতির খবর’ প্রকাশ এবং আট বছর পর এক টেলিভিশন আলোচনায় সে বিষয়ে ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনামের ভুল স্বীকারের প্রসঙ্গ টেনে তিনি সম্পাদক পরিষদের নৈতিক অবস্থান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। প্রেস ক্লাব, সম্পাদক পরিষদসহ সাংবাদিকদের কোনো সংগঠনই কিন্তু তাদের নিজেদের নৈতিকতার সনদ বা আচরণবিধি প্রয়োগ করতে পারেননি। সম্পাদক পরিষদের বর্তমান প্রধান মাহফুজ আনাম, যিনি টেলিভিশনের পর্দায় স্বীকার করেছেন ১/১১ এর সময় আমাদের প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মিথ্যা ও উদ্দেশ্যমূলক সংবাদ প্রচারের কথা। যুক্তরাষ্ট্র বা ইউরোপিয়ান ইউনিয়নে হলে তাকে বাধ্য করা হতো সাংবাদিকতা পেশা থেকে পদত্যাগ করতে। শুধু তাই নয়, তাকে আর কোনোদিন সম্পাদক বা সাংবাদিক হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হতো না। বাংলাদেশে কিন্তু সম্পাদক পরিষদ উল্টো তার পক্ষ নিয়েই তাকে তাদের জেনারেল সেক্রেটারি নির্বাচিত করেছে। বিষয়টি আমাকে অবাক করে। জয় লিখেছেন, যেহেতু, ইইউ ও যুক্তরাষ্ট্র মিশন এই আইন নিয়ে তাদের মতামত তুলে ধরেছে, আমি আশা করবো তারা মাহফুজ আনামের স্বীকারোক্তির পরেও একটি প্রথম সারির পত্রিকার সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বরত থাকা নিয়েও তাদের মতামত জানাবেন। তা না হলে, তাদের কার্যকলাপ হবে একপেশে ও আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার শামিল ।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here