মেসি গোল করেছেন, করিয়েছেন

0
915

ক্রীড়া ডেস্ক : উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে পিএসভিকে ২-১ গোলে হারিয়েছে বার্সেলোনা। বার্সার হয়ে একটি করে গোল করেন মেসি ও পিকে। পিএসভির একমাত্র গোলটি করেন ডি জং। সেপ্টেম্বরে ন্যু ক্যাম্পে পিএসভিকে আতিথ্য দিয়েছিল বার্সেলোনা। নির্দিষ্ট করে বললে মেসির আতিথ্য পেয়েছিল পিএসভি। প্রথম লেগেরে ম্যাচটিতে মেসির হ্যাটট্রিকে বার্সেলোনা জিতেছিল ৪-০ গোলের ব্যবধানে। দ্বিতীয় লেগে নিজেদের মাঠে এই মেসির কাছেই হেরে গেছে পিএসভি। চ্যাম্পিয়নস লিগে বুধবার রাতে মেসি গোল করেছেন, করিয়েছেন। বার্সেলোনা ২-১ গোলের জয় নিয়ে ‘বি’ গ্রুপে শীর্ষে থেকেই উঠে গেল শেষ ষোলোতে। বার্সেলোনা বল দখলে এগিয়ে থাকলেও গোলের সুযোগ তৈরি করেছিল দুই দলই। গোলমুখে বার্সেলোনা শট নেয় ২১টি। আর স্বাগতিকেরা গোলমুখে শট নেয় ২৩টি। পিএসভির খেলোয়াড়েরা ৯টি শটের লক্ষ্য ঠিক রাখতে পেরেছিল। অন্যদিকে মেসি-সুয়ারেজদের ৮টি শট লক্ষ্যে ছিল। প্রথমার্ধেই গোলের বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করেছিল দুই দল। কিন্তু একটিও কাজে লাগেনি। এই যেমন ম্যাচের শুরুতেই চতুর্থ মিনিটে পিএসভির পেরিয়রোর ফ্রি কিক ঝাঁপিয়ে পড়ে আটকে দেন টের স্টেগেন। ম্যাচের ১৬তম মিনিটে পেরিয়রার আরেকটি শট গোলপোস্টে বাধা পায়। ম্যাচের ৩৫ মিনিটে গোলের ভালো সুযোগ পায় কুতিনহো। মেসির বাড়ানো বল থেকে ব্রাজিলিয়ান এই মিডফিল্ডারের নেওয়া শট আটকে দেন পিএসভির গোলরক্ষক। মিনিট দু-এক পর গোলের দুর্দান্ত সুযোগ পায় ভিদাল। দুইবারের চেষ্টাতেও বল জালে জড়াতে না পারলে কাতালানদের স্কোর গোলশূণ্যই থেকে যায়। প্রতিপক্ষের সীমানায় বল নিয়ে মেসির ট্রেডমার্ক দৌড়, রক্ষণচেরা পাস…এসব কিছু কাজে আসেনি প্রথমার্ধে। বরং ৪৫ মিনিটে গোলের সুযোগ নষ্ট করে পিএসভি। পিএসভি অধিনায়কের হেড বার্সেলোনার ক্রসবারে লাগলে বেঁচে যায় স্প্যানিশ জায়ান্টরা। প্রথমার্ধে গোল না হলেও দ্বিতীয়ার্ধে এক এক করে তিন গোলের দেখা পায় দুই দল। ৬১ মিনিটে প্রথমে গোলের গিঁট খোলে বার্সেলোনাই। সেটা মেসির পা ছুঁয়েই। ইদানীং বার্সেলোনার ত্রাতা হিসেবে নিজেকে জাহির করা ডেম্বেলের সঙ্গে ওয়ান টু পাসে আক্রমণে যায় কাতালানরা। মেসির দুর্দান্ত শটে জাল খুঁজে নেয় বল। ৭০ মিনিটেই দ্বিতীয় গোলের দেখা পায় বার্সেলোনা। মেসির দুর্দান্ত ফ্রি কিকে পা ছুঁয়ে বল জালে জড়ান বার্সার স্প্যানিশ ডিফেন্ডার পিকে। গোল হজম করে খেলায় ফেরার চেষ্টা করে পিএসভি। ৮২তম মিনিটে ডি জংয়ের গোলে ব্যবধান কমিয়ে সে ইঙ্গিতও দেয় স্বাগতিকেরা। তবে শেষ পর্যন্ত আর গোলের দেখা পায়নি কোনো দল।

Share on Facebook