সরকারের সঙ্গে ইসির আঁতাতের প্রমাণ থাকলে দিন : কাদের

0
22

নিজস্ব প্রতিবেদক : ক্ষমতাসীন সরকারের সঙ্গে আঁতাত করে নির্বাচন কমিশন  ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছে বলে বিএনপির পক্ষ থেকে যে অভিযোগ করা হয়েছে, তার পরিপ্রেক্ষিতে তথ্য-প্রমাণ দিতে বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল  সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সংলগ্ন হাইকোর্ট এলাকায় তাঁর কবরে শ্রদ্ধা জানাতে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। কাদের বলেন, ‘সরকারের সঙ্গে আঁতাত করে ইসি বিএনপির প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছে-এমন কোনও প্রমাণ থাকলে আমাদের দিন।’এবারের নির্বাচনে ধানের শীষের প্রতীকে প্রার্থী হওয়া ১৪১ জন রাজনীতিকের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে। বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, সরকারের সঙ্গে আঁতাত করেই ইসি এমন পদক্ষেপ নিয়েছে। এছাড়া, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পরও ইসি পুনর্গঠনের দাবি জানিয়ে আসছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা ড. কামাল হোসেন ও বিএনপি নেতারা। এ দাবির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘নির্বাচনের আর আছে ২৪ দিন। যারা এ সময়ের মধ্যে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের কথা বলবে, বুঝতে হবে তারা নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র করছে। বর্তমানে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করার মতো অবস্থা নেই।’বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এই দল দুর্নীতিতে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। কানাডার ফেডারেল আদালত সন্ত্রাসী দল হিসেবে চিহ্নিত করেছে তাদের। সন্ত্রাসী ও দুর্নীতিপরায়ণ দল হিসেবে যে দুর্নাম, সেটি তারা কিভাবে ঘোচাবে? তাদের সাংগঠনিক শৃঙ্খলা নেই, এজন্য এভাবে মনোনয়ন বাণিজ্য হয়েছে। দুর্নীতিটা তাদের রক্তের সঙ্গে মিশে গেছে।’হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর কবরে শ্রদ্ধা জানিয়ে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আমরা গণতন্ত্রের যাত্রা শুরু করেছি। আজকে আমরা এই অঙ্গীকারই করব, গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেওয়ার সংগ্রাম অব্যাহত রাখব।’ গতকাল সকাল থেকেই হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাচ্ছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা।
৩০ তারিখের ভোটের রায়ে বিপ্লব হবে
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন অর্থাৎ ৩০ ডিসেম্বর ভোট বিপ্লব হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, নির্বাচন হবে কি না, এ নিয়ে কারও সন্দেহ নেই। কোনো মিডিয়াতে এ ধরনের সংশয় নিয়ে খবর প্রকাশ হয়নি। ইনশা আল্লাহ নির্বাচন হবে, বিএনপি সরে গেলেও হবে। ধানমন্ডিতে আজ বুধবার দুপুরে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের এ মন্তব্য করেন। ১০ তারিখের পর জনগণ রাস্তায় নামবে নাগরিক ঐক্যের আহŸায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার এমন বক্তব্যের জবাবে মন্ত্রী কাদের বলেন, সরকার কী ভূমিকা পালন করছে, সেটা জনগণ ৩০ তারিখের ভোটে বুঝিয়ে দেবে। তিনি বলেন, ‘মান্না সাহেব অপেক্ষা করুন। ৩০ তারিখে বাংলার মানুষের রায়ে ভোট বিপ্লব হবে, তখন বুঝতে পারবেন আপনার ধারণা কত অবাস্তব।’ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন কারও জন্য আটকে থাকবে না। কেউ যদি সরেও যায়, নির্বাচন সরবে না। নির্বাচন যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে। সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়ন করছে নির্বাচন কমিশনÍবিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলের এমন অভিযোগের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি নির্বাচন বানচালের নীলনকশা লন্ডন থেকে করছে। আওয়ামী লীগের কোনো নীলনকশা নেই, নীলনকশা অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচনের।আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের বিষয়ে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ৯ তারিখ মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। এরপর বিদ্রোহীদের সঙ্গে সঙ্গে বহিষ্কার করা হবে।নির্বাচনের সুস্থ পরিবেশ নেই, বিএনপির এমন অভিযোগের জবাবে কাদের বলেন, অসুস্থ পরিবেশ কোথায় সৃষ্টি হয়েছে এই নগরীতে? এই মুহূর্তে এই ঢাকা শহরে কোথায় পরিবেশ অসুস্থ? যেটুকু অসুস্থ হয়েছে, সেটা পল্টনে বিএনপি করেছে। আওয়ামী লীগের তরফ থেকে নির্বাচনের পরিবেশ বিঘিœত হবে না। তিনি আরও বলেন, ‘আমরা কোনো বিশৃঙ্খলা করব না, এ ব্যাপারে আমাদের নেত্রী নেতা-কর্মীদের সতর্ক করে দিয়েছেন। কিন্তু বিএনপি যদি বিশৃঙ্খলা-নাশকতা করতে চায়, তাহলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আমাদের প্রতিরোধ করতে হবে। এবার বিজয়ের উৎসবের মতো ভোট হবে, এ জন্য বিএনপির মনটা একটু খারাপ

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here