বাংলাদেশের জয়ের স্বপ্ন পুরণ বৃহস্পতিবার সাকিবের পাঁচ উইকেটে পথহারা উইন্ডিজ

0
756

ক্রীড়া প্রতিবেদক: ২৬ বলে অপরাজিত ৪২ রান করা সাকিব বল হাতেও সফল। নিজের করা ৪ ওভারে ৫ উইকেট শিকার করেন সাকিব। খেলায় সমতায় ফিরল বাংলাদেশ। উইন্ডিজকে ৪ বল বাকি থাকতেই ৩৬  রানে হারাল টাইগাররা। সাকিবের ঘূর্ণিতে বিপর্যস্ত উইন্ডিজ। নিজের প্রথম ওভারে ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা শাই হোপ-নিকোলাস পুরানের জুটি ভাঙেন সাকিব। ৬৩ রানে ৩ উইকেট হারানো উইন্ডিজকে খেলায় ফেরান সিমরন হিটমার ও রোভম্যান পাওয়েল। ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা সেই জুটি ভাঙেন সাকিব। ১৭ বলে ১৯ রান করা হিটমার ফেরেন সাকিবের বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে। এরপর ছয়ে ব্যাটিংয়ে নামা ড্যারেন ব্রাভোকেও সাজঘরে পাঠান সাকিব। সাকিবের পর মিরাজের আঘাত রানের পাহাড় তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলে উইন্ডিজ। ১৮ রানে ওপেনার ইভিন লুইসের বিদায়ের পরও নিকোলাস পুরানকে সঙ্গে নিয়ে ব্যাটিং তা-ব চালিয়ে যান শাই হোপ। ওয়ানডে সিরিজে তিন ম্যাচে দুটি সেঞ্চুরি করা ক্যারিবীয় এই ওপেনার শুরু থেকেই একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকাতে থাকেন। ৪ ওভারে ১ উইকেটে ৫২ রান সংগ্রহ করা উইন্ডিজের লাগাম টেনে ধরেন সাকিব ও মিরাজ। নিজের প্রথম ওভারে বোলিংয়ে এসে ১০ রান দিয়ে নিকোলাস পুরানের উইকেট তুলে নেন সাকিব। ঠিক পরের ওভারে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা শাই হোপকে ক্যাচ তুলতে বাধ্য করেন মেহেদী হাসান মিরাজ।
ইভিন লুইসকে সাজঘরে ফিরিয়ে উদ্বোধনী জুটি ভাঙলেন আবু হায়দার রনি। ২১২ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ১৮ রানে প্রথম উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সিরিজে ফেরার দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে রানের রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশ দল। লিটন দাসের ফিফটি (৬০) এবং সাকিব আল হাসান এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের অপরাজিত ৪২ ও ৪৩ রানে ভর করে ৪ উইকেটে ২১১ রানের পাহাড় গড়েছে বাংলাদেশ। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে জয় পাওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজকে সিরিজ নিশ্চিত করতে হলে ২১২ রান করতে হবে। এর আগে চলতি বছরের আগস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাঠে টি-টোয়েন্টির সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে সর্বোচ্চ ১৮৪/৫ রান সংগ্রহ করেছিল বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে ডিএল মেথডে ১৯ রানে জয় পায় সাকিব আল হাসানের দল। টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের দলীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২১৫ রান। যেটা চলতি বছরের মার্চে শ্রীলংকার বিপক্ষে কলম্বোয় ত্রিদেশীয় সিরিজে সংগ্রহ করেছিল টাইগাররা। ১০ রানে নেই ৩ উইকেট ভালো শুরুর পরও ব্যাটিং বিপর্যয়। উদ্বোধনীতে ৪২ রান করা বাংলাদেশ, দ্বিতীয় উইকেটে তুলে নেয় ৬৮ রান। একটা সময়ে ১ উইকেটে বাংলাদেশের সংগ্রহ ছিল ১১০ রান। এরপর মাত্র ১০ রানের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়ে বাংলাদেশ। সৌম্য সরকার এবং লিটন দাসরা ৩২ ও ৬০ রান করে করলেও সুবিধা করতে পারেননি মুশফিকুর রহিম। রানের খাতা খোলার সঙ্গে সঙ্গেই তিনি সাজঘরে ফেরেন। দুর্দান্ত খেলেছেন লিটন কুমার দাস। উদ্বোধনীতে তামিমের সঙ্গে ৪২, এরপর দ্বিতীয় উইকেটে সৌম্য সরকারের সঙ্গে ফের ৬৮ রানের জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের পথে নিয়ে যান লিটন। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটি তুলে নিয়ে ৩৪ বলে ছয় চার ও চারটি ছক্কায় ৬০ রান করে ফেরেন লিটন দাস। উদ্বোধনীতে ৪২ রানের জুটি গড়ে সাজঘরে তামিম। দ্বিতীয় উইকেটে লিটনের সঙ্গে ৬৮ রানের পার্টনারশিপ গড়ে ফেরেন সৌম্য সরকার। এই জুটিতেই ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটি তুলে নিয়েছেন লিটন কুমার। ৩২ রানে সৌম্য আউট হন। হারলেই সিরিজ হাতছাড়া। এমন সমীকরণের ম্যাচে লড়াই করছে বাংলাদেশ দল। উদ্বোধনীতে ৪২ রানের জুটি গড়ে ফেরেন তামিম। দ্বিতীয় উইকেটে সৌম্য সরকারকে সঙ্গে নিয়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন লিটন কুমার দাস। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটি তুলে নিয়েছেন লিটন। ৫৮ রানে ব্যাট করছেন তিনি। সিরিজ বাঁচানোর ম্যাচে উদ্বোধনীতে ৪২ রান যোগ করে ফেরেন তামিম ইকবাল। সাজঘরে ফেরার আগে ১৬ বলে ১৫ রান করেন তামিম। তার বিদায়ের পর সৌম্য সরকারকে সঙ্গে নিয়ে দলের হাল ধরেন ওপেনার লিটন দাস।
ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশে ক্রিকেট দল। গতকাল বিকাল ৫টায় মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ক্যারিবীয়দের মুখোমুখি হয়েছে টাইগাররা। জ্বরের কারণে খেলা নিয়ে খানিকটা শঙ্কা থাকলেও শেষ পর্যন্ত মাঠে নেমেছেন সাকিব আল হাসান। করেছেন টস। তবে আগের ম্যাচের মতো এবার টস ভাগ্যকে পাননি পাশে। ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক কার্লোস ব্র্যাথওয়েট টস জিতে বাংলাদেশকে পাঠিয়েছেন ব্যাটিংয়ে। বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, লিটন দাস, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আরিফুল হক, মেহেদি হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, আবু হায়দার রনি ও মোস্তাফিজুর রহমান।

Share on Facebook