কোন শ্রমিক যেন অন্যায়ভাবে হয়রানির শিকার না হয় : বাণিজ্যমন্ত্রী

0
224

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্শি বলেছেন, বাংলাদেশের দেশের তৈরী পোশাক খাতকে এগিয়ে নিতে মালিক ও শ্রমিকদের যৌথ ভাবে কাজ করতে হবে। সুসম্পর্ক রেখে কাজ করলে দেশের তৈরী পোশাক শিল্প অনেকদূর এগিয়ে যাবে। পোশাক শিল্পের উন্নয়নে সংশ্লিষ্ট সকলকে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে। শ্রমিকরা শিল্পের জীবন। শ্রমিকদের সুযোগ-সুবিধা দেখা শিল্প মালিকদের দায়িত্ব। যে কোন সমস্যা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা সম্ভব। বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, তৈরী পোশাক শিল্প দেশের প্রধান রপ্তানি খাত। এ খাতের শৃঙ্খলা ধরে রাখা একান্ত জরুরি। এ জন্য শ্রমিক পক্ষের আলোচক নির্দিষ্ট থাকা প্রয়োজন। তা হলে অপপ্রচার ও গুজব ছড়ানোর সুযোগ থাকবে না। কোন শ্রমিক অন্যায় ভাবে কোন ধরনের হয়রানির শিকার হবে না। তৈরী পোশাক শিল্পে কাজ করে অনেক শ্রমিকের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়েছে। আগামীতে আরো হবে। বাণিজ্যমন্ত্রী গতকাল শনিবার ঢাকায় ব্র্যাক সেন্টার ইন অডিটরিয়ামে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) আয়োজিত ‘পোশাকখাতে সাম্প্রতিক মজুরি বিতর্ক ঃ কী শিখলাম?’ শীর্ষক সংলাপ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। টিপু মুন্শি বলেন, শিল্প মালিকদের সচেতন থাকতে হবে, যাতে কেউ অপপ্রচার চালিয়ে এ শিল্প খাতকে অস্থির করতে না পারে। গুজব ছড়িয়ে শ্রমিকদের  বিভ্রান্ত করার মতো ঘটনা ইতোপূর্বে ঘটেছে। এ গুলো প্রতিরোধ করতে সকলকে সজাগ থাকতে হবে। শিল্প মালিকগণ শ্রমিকের মজুরি বাড়িয়েছে, কিন্তু পণ্যের ক্রেতাগণ সে তুলনায় তৈরী পোশাকের মূল্য বাড়াচ্ছে না। যা তৈরী পোশাক শিল্প পরিচালনার ক্ষেত্রে ঝুকিপূর্ণ। সিডিপি’র সম্মানিত ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্রাচার্য এর সঞ্চালনায় সিপিডি’র চেয়ারম্যান অধ্যাপক রেহমান সোবহানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিষয়ের উপর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিপিডি’র গবেষণা পরিচালক ড. খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন এফবিসিসিআই’র প্রেসিডেন্ট মো. সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, বিজিএমই-এর প্রেসিডেন্ট মো. সিদ্দিকুর রহমান এবং গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র এর সভাপতি অ্যাডভোকেট মন্টু ঘোষ। বিষয়ের উপর আলোচনায় তৈরী পোশাক শিল্পের মালিক, শ্রমিক প্রতিনিধিগণ বক্তব্য রাখেন।
এছাড়া বাণিজ্যমন্ত্রী রংপুর অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য সকলকে একসাথে কাজ করতে আহ্বান জানান। তিনি বলেন, রংপুর অঞ্চল দেশের অনেক স্থান থেকে পিছিয়ে আছে। উন্নয়নের জন্য রংপুরে সবকিছুই আছে। উদ্যোগ গ্রহনের অভাবে আশানুরুপ উন্নয়ন হয়নি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের উন্নয়নে আন্তরিকতার সাথে সফল ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। উন্নয়নের জন্য রংপুর অঞ্চলের মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে। বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সাংবাদিকরা সমস্যা এবং উন্নয়নের সম্ভাবনা তুলে ধরেন।  উন্নয়নের ক্ষেত্র নির্বাচনের জন্য সাংবাদিকগণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন। কাজ শুরুর আগে প্রয়োজন পরিকল্পনা ও লক্ষ্য নির্ধারণ করা। সে কাজটি আমাদের আগে করতে হবে। সম্মিলিত ভাবে কাজ করলে যে কোন ভালো কাজ করা সম্ভব।ঢাকার বাংলাদেশ শিশু একাডেমিতে রংপুর বিভাগ সাংবাদিক সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। টিপু মুন্শি বলেন, রংপুর অঞ্চলের উন্নয়নে ভূমিকা রাখার দায়িত্ব আমাদের সবার। আমরা সম্মিলিত ভাবে কাজ করলে রংপুর আর পিছিয়ে থাকবে না। রংপুর অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য একসাথে কাজ করে যাবো। রংপুর অঞ্চলের উন্নয়নের সম্ভাবনা ও সুযোগ রয়েছে। এ সুযোগকে কাজে লাগাতে হবে। রংপুর বিভাগ সাংবাদিক সমিতির সভপতি মহসীনুল করিম লেবু’র সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, সাবেক সভাপতি কেরামত উল্লাহ বিপ্লব, মুফদি আহমেদ, সহ-সভাপতি ফিরোজ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল কবির আসিফ প্রমূখ।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here