বিশ্রামের পর খুব দ্রুত মাঠে নামবেন সাকিব

0
21

রনি অধিকারী : হোয়াইটওয়াশের লজ্জা নিয়ে লঙ্কা থেকে দেশে ফিরেছে টাইগাররা। এ সিরিজে সাকিবের অভাব হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছে তামিম বাহিনী। বিশ্বকাপ শেষে ছুটি নিয়েছিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব। তবে আশার কথা হচ্ছে সেপ্টেম্বরে ঘরের মাঠে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট দলে ফিরছেন টাইগার অধিনায়ক। বড্ড দুঃসময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন বাংলাদেশ দলের ওপেনার তামিম ইকবাল। দেশের ইতিহাসের সেরা ওপেনার তিনি। ওয়ানডেতে বাংলাদেশ দলের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। অথচ দ্বাদশ বিশ্বকাপে তিনি মেটাতে পারেননি ভক্তদের প্রত্যাশা। ব্যর্থ হয়েছেন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সদ্য শেষ হওয়া ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজেও। এ ছাড়া তার নেতৃত্বে লঙ্কানদের বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে বাংলাদেশ দল। চরম দুঃসময়ের মধ্য দিয়ে যাওয়া তামিমকে কিছুদিন বিশ্রাম নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তার দীর্ঘদিনের বন্ধু ও জাতীয় দলের সতীর্থ সাকিব আল হাসান। গতকাল বনানীর বিদ্যা নিকেতন স্কুল এন্ড কলেজে ডেঙ্গু বিষয়ক সচেতনতামূলত কার্যক্রমে উপস্থিত হন সাকিব। এ সময় ক্রিকেটের ব্যাপারেও কথা বলেন তিনি। আর ক্রিকেট প্রসঙ্গে স্বাভাবিকভাবে উঠে আসে শ্রীলঙ্কা সফরে দলের ব্যর্থতা ও তামিমের অফফর্মের কথা।
তামিমের জন্য কোনো পরামর্শ আছে কিনা জানতে চাওয়া হলে সাকিব বলেন, একজন ক্রিকেটারের ক্যারিয়ারে দুঃসময় আসতেই পারে। আমার মনে হয় যে তামিমের কয়েকদিন বিশ্রাম নেয়া দরকার। নিজেকে রিকভার করা, ফ্রেশ হওয়া এবং আগের চেয়ে ভালোভাবে ফিরে আসার জন্য এটা খুব প্রয়োজন। আমি নিশ্চিত সে এটা করবে। দ্বাদশ বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে ৬০৬ রান করার পাশাপাশি বোলিংয়ে ১১ উইকেট নেয়া সাকিব শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে খেলেননি। বিশ্রামে ছিলেন তিনি।
সাকিব থাকলে বাংলাদেশ দলের শক্তিমত্তা অনেকগুণ বেড়ে যায়। টাইগার ভক্তদের বিশ্বাস বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার খেললে হয়তো সিরিজের ফলাফল অন্যরকম হতো। এ ছাড়া লঙ্কান দলপতি দিমুথ করুনারতেœও স্বীকার করেছেন যে সাকিব থাকলে এত সহজে জয় পেত না তার দল। এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে সাকিব বলেন, ক্রিকেট এক বলের খেলা। হয়তো তিনটা ভালো বলে তিনদিন আমি আউট হয়ে যেতাম। আমি মনে করি, যখন কোনো খেলোয়াড় মানসিক ও শারীরিকভাবে ফিট না থাকে তখন তার খেলা ঠিক না। কারণ এতে তার জন্য পারফর্ম করাটা কঠিন হয়ে উঠে। যেটা প্রভাব ফেলে ম্যাচে। তিনি আরো বলেন, Ÿিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচটা যখন পরিত্যক্ত হলে গেল, তখন সবাই বলছিল যে আমাদের নিশ্চিত ২ পয়েন্ট হাতছাড়া হয়েছে। কিন্তু এই সিরিজটা প্রমাণ করে দিল যে সেই ২ পয়েন্ট নিশ্চিত ছিল না। হয়তো জিততে পারতাম, আবার হারতেও পারতাম। সবশেষে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩ ম্যাচের সিরিজের ফলাফল নিয়ে সাকিব বলেন, অবশ্যই হতাশাজনক একটি সিরিজ কাটল। যদি অন্তত একটা ম্যাচ জিততে পারতাম, তাহলে হয়তো আত্মবিশ্বাসটা ঠিক থাকত। ব্যাপারটা বাংলাদেশের ক্রিকেটে নতুন নয়। সিরিজের পর সিরিজ টানা খেলে যাচ্ছেন ক্রিকেটাররা। পাচ্ছেন না প্রয়োজনীয় বিশ্রাম। এই ধারার পক্ষে নন সাকিব আল হাসান। জাতীয় দলে ভবিষ্যৎ ক্রিকেটার পেতে খেলোয়াড়দের ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে খেলানোর কথা বললেন ওয়ানডের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ ও ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ খেলে আসার পর শ্রীলঙ্কা সিরিজে বিশ্রাম নিয়েছিলেন সাকিব। তাকে ছাড়া শ্রীলঙ্কায় গিয়ে বাংলাদেশ হয়েছে হোয়াইটওয়াশ। ২০১৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের সময়ও বিশ্রাম নিয়েছিলেন সাকিব। সেবার সমালোচনাও হয়েছিল প্রবল। সাকিব বলছেন, একজন খেলোয়াড় শারীরিক ও মানসিকভাবে পুরোপুরি ফিট থাকলেই কেবল তার খেলা উচিত।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here