নিউইয়র্কে ‘হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্মেলন’ ২৮-২৯ সেপ্টেম্বর

0
21

নিউইয়র্ক থেকে এনআরবি : স্মরণকালের অন্যতম জনপ্রিয় সাহিত্য-চলচ্চিত্র ও নাট্য ব্যক্তিত্ব হুমায়ূন আহমেদের সৃষ্টিশীল কর্মকে প্রবাস প্রজন্ম তথা আন্তর্জাতিকভাবে আরো বেশী জনপ্রিয় করার অভিপ্রায়ে নিউইয়র্কে ২৮ ও ২৯ সেপ্টেম্বর শনি ও রোববার ‘হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্মেলন’ অনুষ্ঠিত হবে। ১৭ আগস্ট শনিবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্কে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন নিউইয়র্কে অবস্থানরত হুমায়ূন পতœী মেহের আফরোজ শাওন। দুদিনব্যাপী এ সম্মেলনের আয়োজক সংস্থা ‘শোটাইম মিউজিক’র সিইও আলমগীর খান আলম এ সময় আরো জানান, গত দু’বছর দুটি হুমায়ূন মেলা করেছি। এবার হুমায়ূণের সকল কর্মকে আরো বেশী আলোচনা, প্রদর্শনী এবং মঞ্চায়নের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। তাই মেলা থেকে আমরা সম্মেলনে রুপান্তরিত করেছি সবকিছুকে। এতে হুমায়ূণের ঘনিষ্ঠ লেখক, কবি, চলচ্চিত্রকার, নাট্যকার এবং প্রকাশকরাও আসবেন।
সংবাদ সম্মেলনে এই সম্মেলনের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত থাকার তথ্য জানিয়ে ঢাকাস্থ ইউল্যাবের অধ্যাপক সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম আরো জানান, ‘হুমায়ূণের বেশ কটি উপন্যাসের অনুবাদ করা হচ্ছে। সেগুলো প্রবাস প্রজন্ম ছাড়াও আন্তর্জাতিক পাঠকের কাছে সমাদৃত হবে বলে আশা করছি। আর এভাবেই বাংলাদেশের সাহিত্যকে আন্তর্জাতিকীকরণের প্রক্রিয়াটি অব্যাহত রাখা হবে।’
চিকিৎসার কারণে জীবনের শেষ কটি বছর নিউইয়র্কে কেটেছে নন্দিত এই লেখকের। ক্যান্সারে আক্রান্ত হুমায়ূন ২০১২ সালের ১৯ জুলাই ম্যানহাটানে বেলভ্যু হাসপাতালে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেছেন। এজন্যে তার অনেক স্মৃতি এই নিউইয়র্কে জড়িয়ে রয়েছে। অভিনেত্রী, পরিচালক এবং নৃত্য ও কন্ঠশিল্পী মেহের আফরোজ শাওন বিশেষ একটি কোর্স নিচ্ছেন নিউইয়র্কে। এজন্যে বাংলাদেশের পাশাপাশি এখানেও হুমায়ূণের স্মৃতি জাগ্রত রাখার জন্যে সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্মেলনের আয়োজন করা হচ্ছে। শাওন উল্লেখ করেন, বিভিন্ন দেশ থেকেই অনুরোধ পাচ্ছি এ ধরনের মেলা ও সম্মেলনের। এতে কোন আপত্তি নেই। কারণ, হুমায়ূন ছিলেন সকল পাঠক. দর্শক আর শ্রোতার প্রিয় একজন মানুষ। তার ভক্তরা তাকে স্মরণ করবে, তার সৃষ্টিশীল কর্ম অনাগত ভবিষ্যতের জন্যে উজ্জীবত রাখবে-এটা সবচেয়ে বড় আনন্দ এবং পরম গৌরবের।
‘এবারের সম্মেলনের বিশেষ একটি পর্ব থাকবে প্রবাস প্রজন্মের জন্যে। তাদের ভাষায় আমরা সে পর্ব পরিচালনা করতে চাই। এজন্যে প্রতিটি প্রবাসীর আন্তরিক সহায়তা ভীষণ প্রয়োজন’-উল্লেখ করেন শাওন।
সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন সম্মেলনের জন্যে কমিটির আহবায়ক ড. সিনহা মনসুর এবং সদস্য-সচিব কবি মিশুক সেলিম। আরো ছিলেন ডা. জিয়াউর রহমান। এ সময় ‘হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্মেলন’র জন্যে গঠিত উপদেষ্টা মন্ডলির তালিকাও প্রকাশ করা হয়। এরা হচ্ছেন শহীদ পরিবারের সন্তান ডা. জিয়াউদ্দিন আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা-বিজ্ঞানী ড. নূরন্নবী, চারণ কবি বেলাল বেগ, খ্যাতনামা লেখক জ্যোতিপ্রকাশ দত্ত এবং পূরবী বসু।
সম্মেলনের সদস্য-সচিব মিশুক সেলিম এ সময় জানান, জ্যামাইকায় বাংলাদেশী অধ্যুষিত এলাকায় পিএস ১৩১ এর মিলনায়তনে এই সম্মেলনের যাবতীয় প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। এ জন্যে গণমাধ্যমের আন্তরিক সহায়তা চেয়েছেন আলমগীর খান আলম।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here