ঝুলে আছে পৌনে তিন বছর ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক প্রকল্প

0
19

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা (কাঁচপুর)-সিলেট মহাসড়ক চার লেনে উন্নীত করা হবে। মহাসড়কের উভয়পাশে পৃথক সার্ভিস লেন নির্মাণ করা হবে। এতে ব্যয় হবে দুই হাজার কোটি টাকা। দুই বছরের বেশি সময় ধরে প্রকল্পটি ঝুঁলে আছে। অথচ এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে ঢাকা-সিলেট যাতায়াত অনেক বেশি নিরাপদ ও স্বল্প সময়সাপেক্ষ হবে।
মহাসড়ক ও বিভাগ সূত্রে জানা যায়, প্রকল্পটি চীন ও বাংলাদেশ জি-টু-জি ভিত্তিতে বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেয়। সিদআন্ত নেয়া হয় ২০১৬ সালে। তিন বছরের মধ্যে প্রকল্প বাস্তবায়নের কথা। কিন্তু এই দীর্ঘ সময়েও স্থির করা হয়নি প্রকল্পটি সরকারিভাবে না ঠিকাদারের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হবে। শেষ পর্যন্ত এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের অর্থায়নে প্রকল্প বাস্তবায়নের বিকল্প পথও খোজা হচ্ছে।
জানা যায়, প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য চীন সরকার চায়না হারবার ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানিকে দায়িত্ব দেয়। ২০১৬ সালের ৯ অক্টোবর চীনা এই কোম্পানি এবং সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের মধ্যে একটি ফ্রেমওয়ার্ক কনট্র্যাক্ট স্বাক্ষর হয়। এর ভিত্তিতে দুই পক্ষের মধ্যে নেগোসিয়েশন শুরু হয়। তিন দফা বৈঠক হলেও সমঝোতা হয়নি। চীনা কোম্পানির প্রস্তাবিত রেটে সওজ কর্তৃপক্ষ সম্মত হতে পারেনি। চীনা কোম্পানির প্রস্তাব অনুযায়ী মোট প্রকল্প ব্যয় পড়বে দুই হাজার সাতশ কোটি টাকা। চীনা কোম্পানী তাদের সাথে স্থানীয় একটি কোম্পানীকে সম্পৃক্ত করার প্রস্তাব করে। আরো কয়েকটি বিষয়ে সওজ একমত হতে পারেনি। ঢাকা-চট্টগ্রাম ফোর লেন করার ব্যাপারে চীনা কোম্পানির অনৈতিক আচরণের প্রেক্ষিতে সতর্ক অবস্থান নেয় সওজ কর্তৃপক্ষ। নিগোসিয়েশন সফল না হওয়ায় সওজ নিজস্ব অর্থে প্রকল্প বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু পরিকল্পনা কমিশন চীনের জি-টু-জি পদ্ধতির পরিবর্তে চীনেরই রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান চীনা রোড এন্ড ব্রিজ কর্পোরেশন প্রকল্পটি বাস্তবায়নের প্রস্তাব দিয়েছে। চীনা প্রতিষ্ঠানই অর্থের সংস্থান করবে। এখন সরকারই সিদ্ধান্ত যাবে কোন পথে যাবে।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here