মতিঝিল ক্লাবপাড়ায় আবার অভিযান : চার ক্লাবে মিলল টাকা, মদ, সিসা, ক্যাসিনো-জুয়ার সামগ্রী

0
42

নিজস্ব প্রতিবেদক: মতিঝিলে ক্লাবপাড়ায় অভিযান চালিয়ে ঐতিহ্যবাহী মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব, ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাব ও দিলকুশা ক্লাব থেকে ক্যাসিনোসহ বিপুল পরিমাণ জুয়া খেলার সামগ্রী উদ্ধার করেছে পুলিশ। মতিঝিল বিভাগের উপকমিশনার আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালিত হয়। ক্লাবগুলো থেকে উদ্ধার করা হয় টাকা, মদ, সিসা ও ক্যাসিনো-জুয়ার সামগ্রী। এই ক্লাবগুলোয় ক্যাসিনো রয়েছে বলে প্রাথমিক অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে অংশ নেওয়া পুলিশ সদস্য জানান, চারটি ক্লাবেই ক্যাসিনোর সামগ্রী পাওয়া গেছে। গত বুধবার থেকে ঢাকায় ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। ফকিরাপুরের ইয়ংমেনস ক্লাবে প্রথম অভিযান চালিয়ে ক্যাসিনোর সামগ্রী জব্দ করা হয়। ডিসি আনোয়ার হোসেন পরে সাংবাদিকদের বলেন, ‘ক্যাসিনো বন্ধ করার জন্যই আমাদের এই অভিযান। চারটি ক্লাবে অভিযান হচ্ছে। সেখান থেকে ক্যাসিনোর সামগ্রী, টাকা ও মদ উদ্ধার করা হয়েছে।’ আগে অভিযান কেন চালানো হয়নি সাংবাদিকের এই প্রশ্নের জবাবে ডিসি বলেন, ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে অভিযান সব সময় চলছে। তিনি আরও বলেন, ক্যাসিনোর সামগ্রী এক দিনে আসেনি। তার মানে পুলিশ জানত না বা পুলিশ কিছু করেনি তা নয়। তথ্য পেলেই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পুলিশ সব সময় অভিযান পরিচালনা করেছে। হয়তো এত বড় পরিসরে হয়নি। মানুষ যেভাবে প্রত্যাশা করেছে সেভাবে হয়নি। প্রতিটি ক্লাবেই ক্যাসিনোর বিপুল পরিমাণ সরঞ্জাম রয়েছে। জুয়া খেলার বিভিন্ন ধরনের সরঞ্জামও রয়েছে।
গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল বেলা আড়াইটার দিকে এই অভিযান চালায় পুলিশের মতিঝিল বিভাগ। এই তিন ক্লাবের পাশাপাশি আরামবাগ ক্লাবেও অভিযান চালানো হয়। প্রায় দুই ঘণ্টার এই অভিযানে ক্লাবগুলো থেকে ক্যাসিনো বোর্ডের পাশাপাশি বিপুল পরিমাণ তাস খেলার সামগ্রী, জুয়ার বোর্ড, জুয়া খেলার সামগ্রী এবং মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়।
অভিযান চালানো এই ক্লাবগুলোতে যে জুয়া খেলা হয়, সে ব্যাপারে আগে থেকে কোনো তথ্য পুলিশের কাছে ছিল না বলে দাবি করেছেন পুলিশের মতিঝিল বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার শিবলী নোমান। তিনি বলেন, এই ক্লাবগুলোর ভেতরে যে ক্যাসিনো আছে বা এখানে যে জুয়া খেলা হতো, এ বিষয়ে পুলিশের কোনো ধারণা ছিল না। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চারটি ক্লাবে একযোগে এই অভিযান চালানো হয়েছে। তবে অভিযানে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।
ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাবে ৯টি ক্যাসিনো পাওয়া গেছে। ক্লাবটির শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত হলরুমে ঢুকে দেখা গেছে, সুসজ্জিত ও অত্যাধুনিক সুবিধাসম্পন্ন হলরুমে জুয়া খেলার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। অভিযানে ৯টি ক্যাসিনোর পাশাপাশি অসংখ্য জুয়া খেলার বোর্ডও পাওয়া গেছে। ক্লাবটি থেকে নগদ ১ লাখ টাকাও জব্দ করা হয়েছে। জুয়া খেলতে আসা ব্যক্তিদের জন্য ক্লাবের ভেতরে আছে আলাদা রন্ধনশালা।
ভিক্টোরিয়ার পাশাপাশি ঐতিহ্যবাহী মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবেও অভিযান চালায় পুলিশ। ক্লাবের ভেতরে অসংখ্য জুয়া খেলার বোর্ড, সরঞ্জাম এবং অন্তত দুটি ক্যাসিনো পাওয়া গেছে। এ ছাড়া টাকা গোনার বেশ কয়েকটি মেশিন ও হাউজি সরঞ্জামও উদ্ধার করা হয়েছে। ভিআইপি ব্যক্তিদের জন্য আছে আলাদা ছোট ছোট কক্ষ। আছে আলাদা টাকা গোনার কক্ষ ও রন্ধনশালা। ক্লাবের ভেতর থেকে ১২টি ওয়াকিটকিও উদ্ধার করেছে পুলিশ। মোহামেডানের মতো দিলকুশা ক্লাবেও ভিআইপিদের জন্য জুয়া খেলার আলাদা কক্ষ দেখা গেছে। এই ক্লাব থেকে একটি ক্যাসিনো ও ১৩টি জুয়া খেলার বোর্ড পাওয়া গেছে।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here