এক ম্যাচ হাতে রেখেই ফাইনালে বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : এক ম্যাচ হাতে রেখেই সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিশ্চিত করলো বাংলাদেশ। গতকাল নেপালকে ২-১ গোলে হারায় বাংলাদেশের মেয়েরা। ভুটানের চাংলিমিথাং স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের জয়ের রূপকার অধিনায়ক সামসুন্নাহার ও শাহিদা আক্তার রিপা। আগামীকাল ভারতের বিপক্ষে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ স্থানের লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ। গত আসরে অল্পের জন্য শিরোপাটা ধরে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ। নতুন একটা দল নিয়েই শিরোপা পুনরুদ্ধারের চ্যালেঞ্জ নিয়ে এবার ভুটান গেছেন নারী দলের সফল কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। প্রথম ম্যাচেই স্বাগতিক ভুটানকে ২-০ গোলে হারিয়ে টুর্নামেন্টে শুভ সূচনা করে বাংলাদেশ। রাউন্ড রবিন লীগ পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত এবারের আসরে চার দলের মধ্যে গ্রæপের সেরা দুই দল খেলার সুযোগ পাবে ফাইনালে। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারতও নিজেদের শুরুর দুই ম্যাচে জয় পেয়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় দ্বিতীয় ম্যাচে বড় জয় কুড়ায় গত আসরের চ্যাম্পিয়নরা। দুই ম্যাচে বাংলাদেশের সমান ৬ পয়েন্ট নিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ভারতও। সমান পয়েন্ট নিয়েও গোল গড়ে এগিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে আছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। রানার্স আপ বাংলাদেশ আছে দ্বিতীয় স্থানে। আগামীকাল ভারতের সঙ্গে গ্রæপ সেরা হওয়ার ম্যাচ বাংলাদেশের। টানা দুই ম্যাচে হেরে আসর থেকে বিদায় নিশ্চিত নেপাল ও ভুটানের।
গতকাল নেপালের বিপক্ষে ম্যাচের পঞ্চম মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষের দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে ডি বক্সে ঢুকে পড়লেও গোলে শট নিতে ব্যর্থ হন সামসুন্নাহার। ১১তম মিনিটে নওশীন জাহানের হেড গোলবার উঁচিয়ে গেলে ফের হতাশ হয় মেয়েরা। পরের মিনিটেই এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। ১২তম মিনিটে শাহিদা আক্তার নিপার গোলে এগিয়ে যায় লাল-সবুজের দল। প্রতিপক্ষ দলের দুজন ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে গোলরক্ষকের পাশ দিয়ে প্লেসিং শটে বল জালে জড়ান রিপা। ম্যাচের ২৬ মিনিটে পেনাল্টিতে গোল নিয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অধিনায়ক সামসুন্নাহার। ম্যাচের বাকি সময়ে আধিপত্য বজায় রেখেও গোল করতে পারেনি বাংলাদেশ। ৬১তম মিনিটে স্বপ্না রানীর জোরালো শট ফিরিয়ে দেন নেপালের গোলরক্ষক। উল্টো ম্যাচের ৬৪ মিনিটে এক গোল হজম করে ছোটনের শিষ্যরা। ডি বক্সের বাইরে থেকে দারুণ শটে গোল আদায় করেন নেপালি তারকা সুষমা জেটি। সহজ প্রতিপক্ষের বিপক্ষে এতো সুযোগ নষ্ট করায় বিরক্ত কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। ম্যাচ শেষে বলেন, গত (শুক্রবার) আমাদের কমপক্ষে আধাডজন গোলে জেতা উচিত ছিল। মেয়েরা এতো গোল মিস করলে ভারতের বিপক্ষে জেতা কঠিন হবে। মেয়েদের বয়সভিত্তিক এই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হয়েছে ২০১৭ সাল থেকে। নিজেদের ঘরে প্রথম আসরে চ্যাম্পিয়ন হলেও পরের বার ভারতের কাছে হেরে রানার্স আপ হয়েছিল বাংলাদেশ।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here