বিদেশি শিক্ষার্থীদের নিয়ে ভর্তি বাণিজ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক : মেডিক্যালে ভর্তি বাণিজ্য চলছেই। সরকারি হাসপাতালগুলোতে যেসব বেসরকারি হাসপাতালগুলোও দুর্নীতি চলছে। বিদেশি শিক্ষার্থীদের এমবিবিএস-এ ভর্তির ক্ষেত্রে অনিয়ম, দুর্নীতির ঘটনা ঘটেছে। বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ নির্ধারিত কোটা বিদেশিদের ভর্তির সুযোগ না দিয়ে স্থানীয়দের ভর্তি করা হয়। বিনিময়ে নেয়া হয় মোটা অঙ্কের অর্থ। বছরের পর বছর ধরেই এ অনিয়ম দুর্নীতি চলে আসছে।
জানা যায়, ২০১৫-১৬, ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে বিদেশি কোটায় শিক্ষার্থীদের স্থলে স্থানীয়দের ভর্তি করার বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। সার্কভুক্ত দেশসমূহ ও তার বাইরের দেশ সমূহের শিক্ষার্থীদের ভর্তির জন্য কোটা ব্যবস্থা রয়েছে। ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস পরীক্ষায় নন-সার্কভুক্ত দেশের মেধা তালিকার শীর্ষে ছিলেন মালয়েশিয়ার সোহান্দ্রা রাজ নামের এক শিক্ষার্থী। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হওয়ার যোগ্যতা ছিল তার। কিন্তু তাকে সে সুযোগ দেয়া হয়নি। সে সুযোগ দেয়া হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তামকিন সাকির নামক একজনকে। মেধা তালিকার শীর্ষ দশের থাকা বিদেশিদের ঢাকা মেডিক্যালের পরিবর্তে ঢাকার বাইরের বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজে ভর্তির সুযোগ দেয়া হয়।
২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে বেসরকারি শিক্ষাবর্ষে কলেজগুলোতে বিদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য পঞ্চাশ শতাংশ কোটা রাখা হয়। বিদেশিদের জন্য সংরক্ষিত মোট ৩ হাজার ১৭৭টি আসনের মধ্যে ভর্তি করা হয় ১ হাজার ৫৬০ জনকে। অবশিষ্ট আসনগুলোতে বিদেশিদের স্থলে স্থানীয়দের ভর্তি করা হয়। ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজগুলোতে বিদেশিদের জন্য চল্লিশ শতাংশ আসন রাখা হয়। কিন্তু ভর্তি করা হয় সাত শতাংশ। এমনিভাবে প্রতিবছরই কম সংখ্যক বিদেশিকে ভর্তি করে স্থানীয় শিক্ষার্থীদের সুযোগ দেয়া হয়। এ ব্যাপারে শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে কলেজ কর্তৃপক্ষ অনুমতিও সংগ্রহ করে। প্রায় সব কটি বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজেই বিশাল অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে এই অবৈধ কার্যক্রম চলে আসছে।
জানা যায়, নেপাল, ভুটানসহ কয়েকটি দেশের ঢাকাস্থ দূতাবাস থেকে বিষয়টি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অবহিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ করা হয়। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে তা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রণালয়কে জানান হয়। মন্ত্রণালয়ে থেকে কমিটি গঠন করে তদন্ত করা হয়। তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্টদের অনৈতিক সংশ্লিষ্টতাও পাওয়া যায়।

Share on Facebook