দুই খ্যাতিমান বর্ষীয়ান শিল্পীর ‘ইত্যাদি’র প্রতি ভালোবাসা

বিনোদন প্রতিবেদক : দীর্ঘদিন পর আবারো টেলিভিশনের পর্দায় ফিরছেন খ্যাতিমান বর্ষীয়ান অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান ও মাসুদ আলী খান। আর এই দুই গুণী অভিনেতাকে একসঙ্গে ক্যামেরার সামনে নিয়ে আসছেন নির্মাতা, উপস্থাপক হানিফ সংকেত ২৯শে নভেম্বর প্রচারিতব্য তার ‘ইত্যাদি’র মাধ্যমে। গত ৪ঠা নভেম্বর ঢাকাস্থ ফাগুন অডিও ভিশনের নিজস্ব শুটিং স্পটে তাদের এ দৃশ্যধারণ করা হয়। উল্লেখ্য, টানা চার মাসেরও বেশি সময় গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন এটিএম শামসুজ্জামান।
তিনি সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরলে তার স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে তাকে নিয়ে ‘ইত্যাদি’র জন্য একটি নাট্যাংশ নির্মাণ করেন হানিফ সংকেত। এ প্রসঙ্গে এটিএম শামসুজ্জামান বলেন, কথায় আছে, রাখে আল্লাহ মারে কে। যখন অসুস্থ ছিলাম তখন আমার মনে হচ্ছিল আমি কি আর ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে পারবো। আবার কি অভিনয় করতে পারবো। এই সময় ‘ইত্যাদি’র হানিফ সংকেত আমার কাছে এলেন। বললেন, আপনাকে আমরা নিয়ে যাবো, আপনার একটুও হাঁটতে হবে না। তিনি তার কথা রাখলেন। শুধু নিয়ে যাওয়াই নয়, চেয়ারে বসিয়ে কয়েকজনকে দিয়ে দোতালায় উঠালেন এবং ক্যামেরার সামনে দাঁড় করালেন।
পরম ধৈর্য্য সহকারে বেশ সময় নিয়ে আমাদের পর্বটি ধারণ করলেন এবং শুটিং শেষে আবার বাসায় পৌঁছে দিলেন। তার আপ্যায়ন, শিল্পীর প্রতি সম্মান সবসময় আমার ভালো লাগে। এবারও তার সেবাযতœ আমাকে মুগ্ধ করেছে। এদিকে আরেক বর্ষীয়ান অভিনেতা মাসুদ আলী খান ৯০ বছরে পা রেখেও ‘ইত্যাদি’র মাধ্যমে আবার দীর্ঘদিন পর টেলিভিশনে অভিনয়ে ফিরলেন। ‘ইত্যাদি’তে অভিনয়ের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, প্রায় ৬ বছর আগে দুর্ঘটনার ফলে আমার শিরদাঁড়ার একটি অংশ ভেঙে যায়। এ কারণে আমার পক্ষে আর অভিনয় করা সম্ভব হতো না। তবে আমি একটা আশা পোষণ করছিলাম যে, এই জীবন সায়াহ্নে এসে ‘ইত্যাদি’র একটা পর্বে অভিনয় করবোই। তাই এবার এ অনুষ্ঠানটির মাধ্যমে আপনাদের সামনে আসা। নির্মাতা হানিফ সংকেত বলেন, এই দুই গুণী অভিনেতা ‘ইত্যাদি’র প্রায় নিয়মিত শিল্পী। দীর্ঘদিন দূরে থাকার পর পরিবারের একজন সদস্য ফিরে এলে যেমন আনন্দ হয় ‘ইত্যাদি’তে আবার তাদের পেয়ে আমিও তেমনি আনন্দিত।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here