বুদ্ধি ভাড়া নিতে ৩৩ কোটি টাকা!

0
179

নিজস্ব প্রতিবেদক: নৌ পরিবহন খাতের একটি উন্নয়নমূলক প্রকল্পে বুদ্ধি বৃত্তিক ও পেশাগত সেবার জন্য বিশেষজ্ঞ প্রতিষ্ঠান নিয়োগ করা হচ্ছে। এ ধরনের প্রতিষ্ঠান নিয়োগ বাংলাদেশে এই প্রথম। এজন্য বরাদ্দ ছিল ১৬ কোটি টাকা। কার্যাদেশ দেয়া হয়েছে ৩৩ কোটি ৮২ লাখ টাকা।
জানা যায়, বাংলাদেশ আঞ্চলিক-অভ্যন্তরীন নৌ পরিবহন প্রকল্পের জন্য ৩ হাজার ২শ কোটি টাকা ব্যয় হবে। এরমধ্যে ২ হাজার ৮৮০ কোটি টাকা ভারতীয় প্রকল্প সাহায্য। বাকী অর্থের যোগান দিচ্ছে বাংলাদেশ। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে অভ্যন্তরীণ নৌপথে পণ্যবাহী চলাচল সহজতর হবে। একইভাবে ভারতীয় পণ্যবাহী নৌযান চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর পর্যন্ত নির্বিঘেœ চলাচলের সুযোগ পাবে। ২০১৬ সালে প্রকল্পটি শুরু করে ২০২৪ সালে শেষ করার কথা। ঋণের অর্থ ছাড়ে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের বিলম্বের কারনেই প্রধানত প্রকল্পটির বাস্তবায়ন কাজ পিছিয়ে আছে।
জানা যায়, এক্সিম ব্যাংকের পরামর্শ অনুযায়ী এ প্রকল্পের আওতায় বুদ্ধি বৃত্তিক ও পেশাগত সেবা কাজের জন্য বিশেষ প্রতিষ্ঠান নিয়োগের বিধান রাখা হয়। এজন্য বরাদ্দ ছিল ১৬ কোটি টাকা। প্রাক্কলিত মূল্যও ছিল তাই। এ কাজের জন্য আগ্রহী প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে দর চাওয়া হয়। একটি প্রতিষ্ঠান প্রাক্কলিত দর অপেক্ষা ১১১ দশমিক ৪২ শতাংশ অধিক রেট কোট করে। তাদের রেট ছিল ৩৩ কোটি ৮২ লাখ টাকা। অস্বাভাবিকরকম বাড়তি হারেই কাজ দেয়া হয়।
নৌ পরিবহন খাতে খনন, পুন:খননসহ যেকোন উন্নয়ন কাজে কখনওই বুদ্ধিবৃত্তিক সেবা নেয়ার প্রয়োজন হয়নি। এ ধরনের নজিরও নেই। তারপরও মোটা অঙ্কের অর্থ ব্যয়ে তা নিতে হয়েছে।

Share on Facebook