নেপাল থেকে দৈনিক ৫শ মেগাওয়াট জলবিদ্যুত কেনা হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক: নেপাল থেকে ভারতীয় কোম্পানির মাধ্যমে জলবিদ্যুত আমদানী করা হবে। প্রথম পর্যায়ে দু’শ মেগাওয়াট এবং পরবর্তী এক বছরের মধ্যে আরো ৩শ মেগাওয়াট বিদ্যুত আনা হবে।
নেপালের আপার কর্নালী বেসিনে ভারত ৯শ মেগাওয়াট জলবিদ্যুত উৎপাদনের প্ল্যান্ট নির্মাণ করছে। আগামী কয়েক মাসের মধ্যে প্ল্যান্ট নির্মাণ কাজ শেষ করে উৎপাদনে যাবে। নেপালে জলবিদ্যুত প্ল্যান্ট নির্মিত হচ্ছে ভারতীয় অর্থায়নে ও কারিগরি সহযোগিতায়। জিএমআর গ্রæপ নামক ভারতীয় একটি প্রতিষ্ঠান এ প্ল্যান্ট নির্মাণ করছে। এই প্ল্যান্টে উৎপাদিত বিদ্যুত ভারত তার অভ্যন্তরীণ চাহিদা পুরণে ব্যবহার করবে এবং একটি অংশ বাংলাদেশকে দেবে। ভারতীয় সংস্থা বিদ্যুত নিগম লি: এর মাধ্যমে ভারত বাংলাদেশের কাছে বিদ্যুত বিক্রি করবে। বাংলাদেশ বিদ্যুত উন্নয়ন বোর্ড ও বিদ্যুত নিগম , ভারত এর মধ্যে এ ব্যাপারে চুক্তিও স্বাক্ষর হয়েছে।
নেপালের আপার কর্নালী হাইড্রো পাওয়ার বিদ্যুত কেন্দ্র হতে বিদ্যুত কিনে নেপাল-ভারত-বাংলাদেশ মাল্টিপল পয়েন্টে আনা হবে। প্রথম বছরে বাংলাদেশে দু’শ মেগাওয়াট ও পরবর্তী বছরে আরো তিনশ মেগাওয়াট বিদ্যুত সরবরাহ করা হবে।
এদিকে, দীর্ঘদিন ট্যারিফের বিষয়টি অনির্ধারিত থাকলেও ভারতীয় পক্ষ গত ১৮ সেপ্টেম্বর ট্যারিফ প্রস্তাব করছে। সেন্ট্রাল ইলেকট্রিসিটি রেগুলেটরি কমিশন, ভারত এর গাইড লাইনের ভিত্তিতে তারা ট্যারিফ নির্ধারণ করেন। জলবিদ্যুত সংক্রান্ত তথ্যাদি ও ঋতুভিত্তিক বিদ্যুত উৎপাদনের খরচের তারতম্য বিবেচনায় নিয়ে ট্যারিফ প্রস্তাব করা হয়। ভারতের পেশকৃত কিলোওয়াট প্রতি ট্যারিফ হচ্ছে ৮ দশমিক ৭৯ মার্কিন সেন্ট। তাদের প্রস্তাব অনুযায়ী আগামী পঁচিশ বছর এই ট্যারিফ হার অভিন্ন থাকবে। ট্রান্সমিশন চার্জ নেপাল-ভারত সীমান্ত পর্যন্ত ০ দশমিক ৩৬ সেন্ট এবং ভারতের ট্রান্সমিশন চার্জ ০ দশমিক ৩৬ সেন্টসহ মোট ল্যান্ডেড ট্যারিফ প্রতি কিলোওয়াটে ১০ দশমিক ৯৫ সেন্ট প্রস্তাব করা হয়। বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ দরকষাকষি করে শেষ পর্যন্ত ল্যান্ডেড ট্যারিফ প্রতি কিলোওয়াটে ৭ দশমিক ৭১৭২ সেন্ট নির্ধারনের ভারত রাজি হয়। দৈনিক ৫শ মেগাওয়াট বিদ্যুত সরবরাহের চুক্তি থাকলেও প্রাকৃতিক কারনের জন্য বাংলাদেশের প্রস্তাবে উৎপাদন তারতম্যে দৈনিক সরবরাহের পরিমানে তারতম্য হতে পারে। তবে গড় সরবরাহ দৈনিক ৫শ মেগাওয়াটই থাকবে। পঁচিশ বছর অভিন্ন ট্যারিফ রেটে ভারতকে দিতে হবে মোট ৩৮ হাজার ১৬০ কোটি টাকা। ভারতীয় সরবরাহকারি কোম্পানি বিদ্যুত নিগম লি: কে ট্রেডিং মারজিন আকারে প্রতি কিলোওয়াটে ০ দশমিক ০৫৭২ সেন্ট করে দিতে হবে। পঁচি বছর পর্যন্ত ট্রেডিং মারজিন বছরে দুই শতাংশ হারে বৃদ্ধি পাবে।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here