বাংলা কবিতার বিশ্বায়নে অনুবাদের ভূমিকা শীর্ষক আড্ডা ও কাব্য তক্কো…

নিজস্ব প্রতিবেদক : গত ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বুধবার বিকেল ৩টা থেকে ৫টা অবব্ধি কাঁটাবন কবিতা ক্যাফেতে ‘বাংলা কবিতার বিশ্বায়নে অনুবাদের ভূমিকা ও কাব্য তক্কো’ নিয়ে ‍একটি সুন্দর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়ে গেল। মূলত আমেরিকা থেকে কবি হাসানআল আব্দুল্লাহর অনুবাদে সদ্য প্রকাশিত ‘কনটেম্পোরারি বাংলাদেশি পোয়েট্রি’ এন্থোলজি বিষয়ে এক চমৎকার আড্ডার আয়োজন করা হয়।

‘অনুভূতি’ লিটলম্যাগের ব্যানারে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কবি হাসানআল আব্দুল্লাহ, কবি রহমান হেনরি, কবি আহমেদ স্বপন মাহমুদ, কণ্ঠশিল্পী হাসান মাহমুদ, কবি রনি অধিকারী, কবি সঞ্জীব পুরোহিত, ও সাংবাদিক দিপু সিকদার।বক্তারা বিশ্বের নানা দেশের পাঠকের কাছে বাংলা কবিতা পৌঁছানোর গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হিসেবে ভালো অনুবাদের বিকল্প নেই বলে মত দেন। তারা হাসানআল আব্দুল্লাহকে ধন্যবাদ জানান বাংলাদেশের কবিতাকে ইংরেজি ভাষী পাঠকের হাতে তুলে দেবার অভিপ্রায়ে শ্রমসাধ্য এই কাজটি সম্পন্ন করার জন্য।

কবি রহমান হেনরী বলেন, নিজের কবিতা দিয়ে হাসানআল আব্দুল্লাহ বাংলা ভাষায় একটি শক্ত অবস্থান তৈরি করে ফেলেছে। তাকে আমাদের পড়তে হবে। তবে তিনি মার্কিন কবি ও কয়েকজন অধ্যাপকের সমন্বয়ে বাংলা কবিতার যে ইংরেজি সংকলন অনুবাদ ও সম্পাদনা করেছেন তার গুরুত্বও সীমাহীন।

অনুবাদের কাজ অব্যহত রাখার জন্যে তিনি হাসানআল আব্দুল্লাহকে অনুরোধ করেন। বাংলা কবিতার পাকিস্তানি ও আধুনিক ধারা দুটির ব্যাখ্যা করে আহসান হাবীবকে দিয়ে এই সংকলন শুরু করায় তিনি অনুবাদকের দায়বদ্ধতা ও ইতিহাস সচেতনতার প্রশংসা করেন।

কবি আহমেদ স্বপন মাহমুদ বলেন, এই সংকলনটি এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ যে আজকের অনুষ্ঠান বিপুলসংখ্যক পাঠক শ্রোতার উপস্থিতিতে পাবলিক লাইব্রেরি কিংবা শহীদ মিনারের পাদদেশে হওয়াই যথার্থ ছিল। কিন্তু আমরা তা করতে না পারলেও কবিকে সম্মান জানাতে পেরে আমরা আনন্দিত।কবি হাসানআল আব্দুল্লাহ তার বক্তব্যে অনুবাদকের শ্রম, সততা, ও দায়বদ্ধতার কথা উল্লেখ করে মার্কিন কবি ও অধ্যাপকদের বিশেষত স্ট্যানলি এইচ বারকান, নিকোলাস বার্নস ও জোন ডিগবির সাথে দীর্ঘদিন ধরে এই সংকলন নিয়ে কাজ করার অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও বাংলা ভাষায় ঐতিহ্যকে কবিতার ভেতর দিয়ে তুলে ধরতেই আমি এই কঠিন কাজটি হাতে তুলে নিয়েছিলাম।মার্কিন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় লাইব্রেরি, লাইব্রেরি অব কংরেজ, ও পোল্যান্ড লাইব্রেরি সিস্টেমে বইটি ইতিমধ্যে জায়গা করে নিয়েছে। লং আইল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে গত সেমেস্টারে দুটি ক্রিয়েটিভ রাইটিং ক্লাসে বইটি ব্যবহৃত হয়েছে। বিভিন্ন মহলে সমাদৃত হয়েছে বলে কবি জানান।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কবি আহমেদ স্বপন মাহমুদ। উল্লেখ্য এই বই অনুবাদের ক্ষেত্রে কবি হাসানআল আব্দুল্লাহ নিউইয়র্ক সিটি কালচারাল অ্যাফেয়ার্স থেকে ২০১৯ সালে গ্রান্ট পান।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here