ইচ্ছাকৃত ভাইরাস ছড়ালে ‘ফল ভুগতে হবে’ চিনকে: ট্রাম্প

0
228

নিউজ ডেস্ক: করোনাভাইরাস নিয়ে আমেরিকা-চিন বাগযুদ্ধের আবহ ছিলই। তার মধ্যেই এ বার বেজিংকে রীতিমতো হুঁশিয়ারি দিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্টের হুমকি, ‘‘চিন ইচ্ছাকৃত ভাবে এই ভাইরাস ছড়ালে তার ফল ভুগতে হবে।’’ যদিও কী ধরনের ফল ভুগতে হবে, তা স্পষ্ট করেননি ট্রাম্প। পাশাপাশি শনিবার বিকেলে হোয়াইট হাউসে করোনাভাইরাস নিয়ে রুটিন সাংবাদিক সম্মেলনে সংক্রমণ বিশ্বব্যাপী ছড়ানোর জন্য ফের চিনকে দায়ী করেছেন তিনি। যদিও আমেরিকায় ট্রাম্প বিরোধীদের বক্তব্য, করোনার সংক্রমণ রুখতে হোয়াইট হাউসের ব্যর্থতা ঢাকতে চিনের ঘাড়ে দোষ চাপাতে চাইছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।
‘চাইনিজ ভাইরাস’ দিয়ে শুরু। চিনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রথম ছড়িয়েছিল বলে এখন কার্যত সারা বিশ্বেই স্বীকৃত। আর সেই সূত্রেই চিনা ভাইরাস বলে আক্রমণ করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। পাল্টা জবাবে চিনের তোপ ছিল, মার্কিন সেনাবাহিনীর মধ্যে থেকেই এই ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়েছিল। তার পর থেকে মাঝেমধ্যেই চিনকে কাঠগড়ায় তুলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। সেখান থেকে আরও এক ধাপ এগিয়ে এ বার সরাসরি বেজিংকে হুঁশিয়ারি দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।
সাংবাদিক সম্মেলনে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘‘এটা যদি ভুল হয় তো ঠিক আছে। ভুল তো ভুলই। কিন্তু তারা (চিন) যদি জেনেশুনে এই কাজ করে, তাহলে অবশ্যই তার ফল ভুগতে হবে।’’ তবে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে, সে বিষয়ে কিছু স্পষ্ট করেননি তিনি। ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে ব্যর্থতার অভিযোগ তুলে বেজিংকে মার্কিন প্রেসিডেন্টের তোপ, ‘‘এটা চিনে শুরু হওয়ার আগেই রুখে দেওয়া যেত। কিন্তু সেটা হয়নি। আর তার ফল ভুগতে হচ্ছে গোটা বিশ্বকে।’’
সোশ্যাল মিডিয়া-সহ কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমেও জল্পনা ছড়িয়েছে যে, উহানের ল্যাবে তৈরি করোনাভাইরাস ইচ্ছাকৃত ভাবে ছড়িয়ে দিয়েছে চিন। স¤প্রতি মার্কিন সংবাদ মাধ্যম ফক্স নিউজ একটি রিপোর্টে উল্লেখ করেছে যে, উহানের একটি ভাইরোলজি ল্যাবে গবেষণা চলছিল। কোনও ভাইরাসের চরিত্র বোঝা এবং তার বিরুদ্ধে লড়াই করার শক্তি বেজিংয়ের কতটা রয়েছে গবেষণার বিষয়বস্তু ছিল সেটাই। সেই সূত্রেই দু’দিন আগেও ট্রাম্প ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, ওই ল্যাবে ভাইরাস তৈরি হতে পারে বা ছড়িয়ে দেওয়া হতে পারে। যদিও সেই জল্পনা উড়িয়ে চিনের সরকারি ল্যাব উহান ‘ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি’ দাবি করেছিল, করোনাভাইরাস চিনের কোনও ল্যাবে কৃত্রিম ভাবে তৈরি হয়নি বা ভুল করে ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনাও নেই। কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ট বৃহস্পতিবারও বলেছিলেন, ভাইরাস ল্যাবে তৈরি কি না, বা ইচ্ছাকৃত ভাবে ছড়ানো হয়েছিল কি না, তা তদন্ত করে দেখা হবে।

Share on Facebook