যা মিললো গুরু রামপালের আশ্রমে

0
168

কালবেলা ডেস্ক : ভারতের গুরু রামপালের আশ্রমে অস্ত্রাগার ও বিতর্কিত বহু জিনিসের সন্ধান পাওয়া গেছে। শুক্রবার সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ্ধ, পেট্রোল বোমা, মরিচের গুড়ার গ্রেনেড ও গর্ভ পরীক্ষার সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে পুলিশ। এরমধ্যে গর্ভ পরীক্ষার যন্ত্রগুলো আশ্রমে রামপাল যেই কক্ষে থাকতেন তার পার্শ্ববর্তী একটি কক্ষ থেকে উদ্ধার করা হয়। এসময় আশ্রমের তালাবদ্ধ একটি বাথরুম থেকে অচেতন অবস্থায় এক নারীকে উদ্ধার করে পুলিশ। রামপালের স্যাটলক আশ্রমে অভিযান চালিয়ে হরিয়ানা পুলিশের বিশেষ তদন্ত দল এসব সরঞ্জাম উদ্ধার করে।
হরিয়ানা পুলিশের এক মুখপাত্র জানান, আশ্রম থেকে তিনটি রিভলবার, ১৯টি এয়ারগান ও বিভিন্ন রেঞ্জের ১০৭টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এগুলো আশ্রমের দু’টি গোপন কক্ষে আলমারি ও ব্যাগে সুরক্ষিত ছিল।
তল্লাশির সময় আশ্রমের কেন্দ্রস্থলে রামপালের একটি আসন খুঁজে পায় পুলিশ। গোপন কক্ষ দু’টি রামপালের আসনের নিচেই নির্মাণ করা হয়।
রামপালের অনুসারীদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, কাচের তৈরি একটি বুলেট প্রুফ কক্ষের একটি স্বয়ংক্রিয় চেয়ারে বসে নিজস্ব বাহিনী বেষ্টিত অবস্থায় ভক্তদের উপদেশ দিতেন গুরু রামপাল।
আশ্রমে রয়েছে একটি বিলাশবহুল সুইমিং পুল ও ২৪টি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষ, গুরুর সেবার জন্য তৈরি বিশেষ একটি বিছানা ও প্রতিটি কক্ষের সঙ্গে ‘অ্যাটাচড বাথরুম’।
শুধু তাই নয়, ভক্তদের গতিবধির উপর নজর রাখাতে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরাও (সিসিটিভি) রয়েছে সেখানে। একসঙ্গে ১ হাজার পাউরুটি তৈরির ক্ষমতা সম্পন্ন একটি বৈদ্যুতিক যন্ত্রও পাওয়া গেছে আশ্রমে। বিশাল এ আশ্রমের প্রতিটি স্থানে তল্লাশি চালাতে আরও কয়েকদিন লাগতে পারে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
৬৩ বছর বয়সী গুরু রামপাল হরিয়ানার পানিসেচ বিভাগের প্রকৌশলি ছিলেন। দায়িত্বহীনতার অভিযোগে ২০০০ সালে চাকরিচ্যুত হওয়ার পর একসময় নিজেকে গুরু হিসেবে দাবি করেন তিনি।
২০০৬ সালে গুরু রামপালের অনুসারীদের গুলিতে এক ব্যক্তি নিহত হওয়ার ঘটনায় জামিনে ছিলেন তিনি। এ মামলায় গত ৪ বছরে ৪৩ বার আদালতে উপস্থিত হতে ব্যর্থ হওয়ায় তাকে আদালতে উপস্থিত করতে ১৮ নভেম্বর পুলিশের প্রতি নির্দেশ দেন হরিয়ানার একটি আদালত।
ওই দিন দুপুরে তাকে ধরতে পুলিশ আশ্রমে গেলে রামপালের নিজস্ব বাহিনী পুলিশকে আশ্রমে ঢুকতে বাধা দেয়। তারা হাত বোমা, অ্যাসিড, বন্দুকসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পুলিশের উপর চড়াও হয়। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ৫ জন মারা যান এবং ৭০ সাংবাদিকসহ কয়েকশ’ আহত হন। সূত্র : এনডিটিভি

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here