গৃহস্থের খড়ের চালে বাঘ?

0
110

সাকিল আহমেদ, সুন্দরবন : সবই সম্ভব সুন্দরবনে। গৃহস্থের খড়ের চালের উপর উঠল বাঘ। ভয়ে দুরু দুরু বুক। আত্মারাম খাঁচা হওয়ার জোগাড়। প্রাণ বাঁচাতে তখন গৃহকর্তার শেষ ভরসা আধুনিক প্রযুক্তির মোবাইল ফোন। মোবাইলই রক্ষা করল গৃহস্থের প্রাণ। অভিনব এই ঘটনাটি ঘটেছে সুন্দরবনের মরিচঝাঁপি এলাকায়। এখানকার অফিস পাড়ার বাসিন্দা কুমির মারির হরেন বিশ্বাস। তার বাড়িতে জ্যোৎøারাতে যেন দোল খেলতে এসেছিল বাঘ। কাউকে দেখতে না পেয়ে হরেন বিশ্বাসের খড়ের চালের উপর উঠে পড়ে বাঘটি। হরেনের পরিবার হঠাৎ আবিস্কার করেন তাদের খড়ের চালের উপর কি যেন একটা ভারি বস্তু নড়ছে চড়ছে। বাড়ির বাইরে এসে দেখেন জ্যোস্না রাতে চোখ দুটো জ্বলজ্বল করছে। ওরে বাবারে বলে ঘরে ঢুকে পড়েছেন তখন গৃহকর্তা। ভয়ে প্রাণ দুরুদুরু।
একমাত্র মোবাইল ফোনই জোগাল ভরসা। এক আত্মীয় মারফত খবর জানায় বনকর্তার বিট অফিসে। রাতেই এসে হাজির হন বনদফতরের কর্মীরা। জাল দিয়ে ঘিরে ফেলেন এলাকা। খড়ের চাল থেকে নামানোর ফন্দি করেন তারা। এদিকে বাঘের হুঙ্কারে সবার প্রাণ আত্মারাম খাঁচা। বনকর্মীরা ঘুম পাড়ানির গুলি করে ঘুম পাড়িয়ে দেয় বাঘকে। ঘুমে ঢুলু ঢুলু বাঘ যখন আয়েশ করছে তখন বনকর্মীরা তাকে খাঁচা বন্দি করেন। সুন্দরবনের কোরানখালি নদী পেরিয়ে দূরে রায়মঙ্গল নদীকে পাশে ফেলে বাঘ বাবাজি শিকারের আশায় গৃহস্থের বাড়িতে এসেছিল।
বনকর্মীরা তারপর দোল পূর্ণিমার রাতেই লঞ্চে খাঁচার ভিতর চাপিয়ে বন জ্যোসনায় তাকে ছেড়ে দেয় সুন্দরবনের চামটা জঙ্গলে। প্রায় এক কুইন্টাল ওজনের বিশাল সাইজের এই বাঘ দেখে বুক শুকিয়ে যায় গৃহস্থের। বাঘবন্দি খাঁচা থেকে বেরিয়ে দক্ষিণ রায় দে ছুট। মানুষ বা গৃহপশুর রক্তের হোলি খেলা হল না বাঘের। আপাতত সে গভীর অরণ্যে হয়তো খুঁজছে দোল খেলার কোন সঙ্গী।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here