যশোরে বিদেশি পতাকা সরিয়ে নেয়ার অনুরোধ

0
179

যশোর প্রতিনিধি : দেশ ও জাতীয় পতাকার প্রতি সম্মান জানিয়ে বিশ্বকাপ ফুটবল উপলক্ষে টাঙানো অন্য দেশের পতাকা সরিয়ে নিতে অনুরোধ জানিয়েছে যশোর জেলা প্রশাসন। মঙ্গলবার জেলা প্রশাসক স্বাক্ষরিত এ চিঠি পেয়েছেন বলে জানান শার্শা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম শরিফুল ইসলাম। তিনি বলেন,এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সোমবার  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছে জেলা প্রশাসন চিঠিটি পাঠায় বলে তিনি জানান। জেলা প্রশাসক মোস্তাফিজুর রহমান স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অন্য দেশের পতাকা সরিয়ে নেয়ার অনুরোধ জানানো হয়।
চিঠিতে বলা হয়, বাংলাদেশ পতাকা বিধিমালা ১৯৭২ এর বিধি ৯ (৪) এ ধারায় উলে¬খ আছে- দেশের অভ্যন্তরে কোনো ভবনে বা যানবাহনে কোনো বিদেশি পতাকা উত্তোলন করা যাবে না। কিন্তু বিশ্বকাপ ফুলবল খেলা উপলক্ষে জেলার বিভিন্ন ভবনে বিদেশি রাষ্ট্রের পতাকা উত্তোলন করে বাংলাদেশ পতাকা বিধিমালা লঙ্ঘন করা হয়েছে। এজন্য আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে জাতীয় পতাকাকে সম্মান জানিয়ে বিদেশি পতাকা সরিয়ে নিতে সবার প্রতি অনুরোধ জানানো হলো।
এ বিষয়ে যশোরের এনডিসি মো. নাজমুল আলম বলেন, “এটা কোনো নির্দেশনা না। আমরা জাতীয় পতাকা বিধিমালা অনুযায়ী সবাইকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অন্য দেশের পতাকা সরিয়ে নিতে অনুরোধ করেছি।”
অনুরোধের পর অনেক স্থানের পতাকা নামিয়ে ফেলা হয়েছে। মঙ্গলবার গোটা শহর ঘুরে অল্প কিছু স্থানে পতাকার দেখা মিলেছে।
মঙ্গলবার শহরের বিভিন্নস্থান ঘুরে দেখা গেছে, যেসব স্থানে আর্জেন্টিনা, ব্রাজিলসহ বিভিন্ন দেশের বড় বড় পতাকা ঝুলছিল, সেগুলো সোমবার রাতেই এবং মঙ্গলবার সকালে সরিয়ে ফেলা হয়েছে। যেসব ফুটবলপ্রেমিরা এসব পতাকা টাঙিয়েছিলেন, তারা নিজেরাই এ পতাকা সরিয়ে ফেলেছেন। তবে অনেকে এটিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখলেও কেউ কেউ সমালোচনাও করেছেন।

জেলা প্রশাসক মোস্তাফিজুর রহমান উল্লেখ করেন, এই নির্দেশনা প্রচার হওয়ার পর এটিকে ইতিবাচক হিসেবে নিয়ে অধিকাংশ মানুষ বিদেশি পতাকা নামিয়ে ফেলেছে। অনেকে জেলা প্রশাসকের কাছে ফোন জানিয়েছে, এ আইন তাদের জানা ছিল না, এ জন্য তারা দুঃখিত ও লজ্জিত।
আইন ও নির্দেশনাটি সবার কাছে পৌঁছে গেলে কেউই বিদেশি পতাকা টাঙিয়ে রাখবে না বলেও তিনি উল্লেখ করেন। দেশ ও জাতীয় পতাকার প্রতি সম্মান জানিয়ে যারা বিদেশি পতাকা সরিয়ে নিয়েছেন তাদের ধন্যবাদও জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মোস্তাফিজুর রহমান।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here