নীলফামারীতে পহেলা বৈশাখ উদযাপনে ব্যাপক প্রস্তুতি

0
201

নীলফামারী প্রতিনিধি। বাংলা নতুন বছরকে বরণে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে নীলফামারীতে। পহেলা বৈশাখে “মঙ্গল শোভাযাত্রা” আকর্ষনীয় করতে চলছে জেলা জুড়ে চিত্রশিল্পিদের ব্যস্ততা। দম ফেলার সময় নেই তাদের।
বাংলা বর্ষ বরণের মুল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয় শহরের কালেক্টরেট পাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজ চত্তর থেকে। জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বের করা হয় পহেলা বৈশাখে “মঙ্গল শোভাযাত্রা”।
রাজধানী ঢাকার আদলে মঙ্গল শোভাযাত্রায় রাখা হয় হাতি, ঘোরা, পাখি, প্যাঁচা, বানর, হাতপাখা, ফুল আর গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নানা উপকরণ।
নীলফামারী কালেক্টরেট পাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজ ঘুরে দেখা গেলো দম ফেলার ফুসরত প্রতিষ্ঠানটির চারুকারু বিভাগের শিক্ষার্থীদের। শিক্ষক অরিন্দম কুমার ধরের তত্বাবধানে মঙ্গল শোভাযাত্রায় স্থান পাওয়া হাতি, প্যাঁচা আর ফুল বানাতে ব্যস্ত শিক্ষার্থীরা। প্রতিষ্ঠানটির দশম বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী পায়েল রায় জানান, পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে এপ্রিলের ১তারিখ থেকে প্রস্তুতি শুরু করে সে। বানানো হচ্ছে প্রজাপতি, বেগুন, লতাপাতাসহ আরও আনেক কিছু। তারমত রংতুলির কাজে ব্যস্ত উম্মে হাবিবা, মেহেরুন হাসানসহ অন্তত ১৫জন শিক্ষার্থী।
চারুকারু শিক্ষক অরিন্দম কুমার ধর জানান, পহেলা বৈশাখে জেলার মুল আনুষ্ঠানিকতা প্রাণ পায় কালেক্টরেট পাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজ থেকে। যার কারণে মঙ্গল শোভাযাত্রা দর্শণীয় করতে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থীরা দিনরাত পরিশ্রম করে আসছে।
প্রতিষ্ঠান প্রধান অধ্যক্ষ আবুল কালাম মোঃ ফারুক জানান, ২০০৫সাল থেকে বাংলা বছরের প্রথম দিন পহেলা বৈশাখের শোভাযাত্রা এখান থেকে শুরু করা হয়। সব শ্রেণী পেশার প্রতিনিধিদের নিয়ে বের করা হয় মঙ্গল শোভাযাত্রা। আর শোভাযাত্রায় স্থান পায় শিক্ষার্থীদের নিজ হাতের তৈরিকৃত গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী সব জিনিস। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটছে না।
প্রসঙ্গত জেলা প্রশাসনের আয়োজনে পহেলা বৈশাখে দিনব্যাপী নানা আয়োজন রয়েছে কালেক্টরেট পাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজ চত্তরে। গ্রামীন মেলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, প্রতিযোগীতা, পান্থা ভাতের আসর, শিশু আনন্দ মেলা অনুষ্ঠিত হবে এখানে।

Share on Facebook