গাভী পালনে হাজার কোটি টাকার ঋণ প্রকল্প: স্বার্থান্বেষীরা সক্রিয়

0
982

নিজস্ব প্রতিবেদক : ব্যাংক কর্তৃক অর্থ ছাড় করার আগেই ঋণ পাওয়ার প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। উপজেলা ও জেলা পর্যায়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের মাধ্যমে স্থানীয় প্রভাবশালীরা ঋণ পাওয়ার জন্য জোরালো তদবির শুরু করেছে। গবাদি পশুর জন্য প্রদেয় মাথাপিছু ৫ লাখ টাকার ঋণ সুবিধা পেতে স্বার্থান্বেষী মহলের এই তৎপরতায় ঋণ প্রত্যাশী প্রকৃত কৃষকরা ভীত হয়ে পড়েছে।
মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, সরকার দেশে দুগ্ধ উৎপাদন বাড়ানোর লক্ষে ১ হাজার কোটি টাকার ঋণ বিতরণ কর্মসূচি নেয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রথম বছরে ২শ কোটি টাকা দিয়ে এ কর্মসূচি চালু করা হচ্ছে। বাংলাদেশ ব্যাংক চারটি রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাংকের মাধ্যমে এই অর্থ বিতরণের নির্দেশনা দিয়েছে। একজন কৃষক সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা ঋণ পাবেন। এ ঋণ তিন বছরে পরিশোধযোগ্য। সুদ দিতে হবে ৫ শতাংশ হারে। কমপক্ষে এক লক্ষ ব্যক্তি এই ঋণ পাবেন।
দেশে যে দুধ উৎপাদন হয় তা মোট চাহিদার ২৫ শতাংশ। বাকী চাহিদা আমদানী করে মিটানো হয়। দুগ্ধ আমদানী বাবদ বছরে ব্যয় হয় সাড়ে চার হাজার কোটি টাকা। আমদানী নির্ভরতা কমাতে দেশে গাভী পালন ও দুধ উৎপাদনের উপর গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার। যেসব কৃষকের একাধিক গাভী রয়েছে তাদের এ ঋণ দেয়া হবে। গাভীর ফার্ম মালিকও এই সুবিধা পাবেন। আগামী জুলাই মাস থেকে সারাদেশে ঋণদান কার্যক্রম শুরু হবে। বর্তমানে ব্যাংক সুদের হার শতকরা ১২ থেকে ১৫ ভাগ। এই ঋণে সুদের হার মাত্র ৫ শতাংশ হওয়ায় স্বার্থান্বেষীরা এখনই এই ঋণ পাওয়ার প্রক্রিয়া করতে শুরু করেছে। জেলা, উপজেলায় মৎস ও প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা, স্থানীয় রাষ্ট্রায়াত্ত্ব ব্যাংকের সাথে যোগাযোগ করে সহজে ঋণ পাওয়ার পথ খুঁজছে। সরকার জেলা, উপজেলায় কমিটি গঠন করতে বলেছে। এই কমিটিই আবেদন যাচাই বাছাই করে প্রকৃত ঋণ পাওয়ার যোগ্য ব্যক্তিদের চিহ্নিত করবে। এই কমিটিও লোভের উর্ধ্বে থেকে কাজ করে কিনা সংশয় রয়েছে। অতীতে কৃষি ঋণ বিতরণের ক্ষেত্রে ব্যাপক অসাধুতার অভিযোগ পাওয়া যায়। এ ক্ষেত্রেও যাতে এর পুনরাবৃত্তি নাঘটে সেজন্য বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করা জরুরি বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করেন। সরকারের এ কর্মসূচি সফলভাবে বাস্তবায়িত হলে দেশের দুধের চাহিদা পূরনে তা বিশাল ভূমিকা রাখবে। সেইসাথে বিশাল অঙ্কের বৈদেশিক মুদ্রারও সাশ্রয়। সরকার প্রথম বছরে ২শ কোটি টাকা ব্যয় করবে। পর্যায়ক্রমে তা ১ হাজার কোটিতে উন্নীত করা হবে।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here