জুম্মা নামাজের পর মনোনয়ন দাখিল করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

0
517

সাকিল আহমেদ, কালকাতা : আর কিছু দিন নয় শ্রদ্ধা। তাই শুক্রবারের জুম্বার নামাজ বাদ মনোনয়ন দাখিল করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই ট্রেডিশন সমানে চলেছে। কলকাতার বিভিন্ন কেন্দ্রের মমতার পাশাপাশি অন্য নেতা ও নেত্রীরা মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবার লড়ছেন কলকাতার ভবানীপুর কেন্দ্র থেকে। তিনি বেলা ১:৩০ নাগাদ মনোনয়ন জমা দেন। সঙ্গে ছিলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সম্পাদক সুব্রত বক্সী ও সাংসদ মুকুল রায়। বেহালা পশ্চিমকেন্দ্রে মনোনয়ন জমা দেন উচ্চ শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বালিগঞ্জ কেন্দ্র থেকে মনোনয়ন জমা দেন জনস্বাস্থ্য ও কারিগরী দফতরের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, পুরও নগর উন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম মনোনয়ন পেশ করেন গার্ডেনরিচ বিধানসভা কেন্দ্র থেকে। রাসবিহারী কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন তৃণমূল নেতা শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, তিনিও এদিন মনোনয়ন পেশ করেন। মেদিনীপুরের সবং বিধানসভা কেন্দ্র থেকে মনোনয়ন পেশ করেন কংগ্রেস নেতা ও প্রাক্তন মন্ত্রী মানস ভুঞ্যা। শুক্রবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীরা মনোনয়ন জমা করেন। ডায়ম- হারবার বিধানসভার তৃণমূল প্রার্থী দীপক হালদার তাঁর অনুগামীদের নিয়ে হাজির হন বেলা পৌনে দুটো নাগাদ। জুম্মা নামাজ পড়ে ফেরা মুসলমান সমর্থকরা তাঁর সঙ্গেই ছিলেন। তিনি মনোনয়ন জমা দেন মহকুমা শাসক শান্তনু বসুর কাছে। এই কেন্দ্রের সিপিএম প্রার্থী ডাঃ আবুল হাসনাত মনোনয়ন দাখিল করেন দুপুর সাড়ে এগারোটা নাগাদ। সুন্দরবন উন্নয়ন মন্ত্রী মন্টুরাম পাখিরা মনোনয়ন জমা দেন কাকদ্বীপ মহকুমা অফিসে। প্রাক্তন সুন্দরবন উন্নয়ন মন্ত্রী কান্তি গাঙ্গুলি এবার লড়ছেন অভিনেত্রী দেবশ্রী রায়ের বিরুদ্ধে। তিনিও মনোনয়ন জমা দেন। মগরাহাট পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী নমিতা সাহা ও মনোনয়ন জমা দেন। মগরাহাট পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস সিপিএম জোট প্রার্থী খালিদ ইবাদুল্লাহ মনোনয়ন জমা দেন। সঙ্গে ছিলেন বর্ষিয়ান কংগ্রেস নেতা ও প্রাক্তন বিধায়ক আবুল বাসার লস্কর। ফলতা, কুলপি, মথুরাপুর, মন্দিরবাজার, সাগরদ্বীপ, পাথরপ্রতিমার বিজেপি কংগ্রেস-সিপিএম জোট প্রার্থী, পিডিএস ও এদিন মনোনয়ন জমা দেন। তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থকরা প্রচার  গাড়িতে ঢাক-ঢোল পিটিয়ে মিছিল করে এসে মনোনয়ন জমা দেন। যুযুধান দুই পক্ষের স্লোগানে মুখরিত হয় গঙ্গাপাড়।

Share on Facebook