সরকার ও বিএনপির জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের নির্বাচন হবে নারায়নগঞ্জে

0
139

নিজস্ব প্রতিবেদক : আসন্ন নারায়নগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বিএনপি। প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকীবউদ্দিনের বিরুদ্ধে এক ঝাঁক অভিযোগ থাকার পরও তার অধীনেই নির্বাচন করবে তারা প্রধানত দুই কারনে। প্রধানত সরকারের জনপ্রিয়তার পারদের নিম্নমুখিতা তুলে ধরা এবং দলের নেতা-কর্মীদের সকল বিভ্রান্তির অবসান ঘটিয়ে উজ্জীবিত করে তোলা। প্রচন্ড সীমাবদ্ধতার মধ্যেও বিজয় নিশ্চিত করার মাধ্যমে দেশে-বিদেশে তাদের জনপ্রিয়তা তুলে ধরা। দ্বিতীয়ত্ব সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচনেও তাদের পরাজয় হলে ফলাফল বর্জন করে নির্বাচন কমিশন ও সরকারের বিরুদ্ধে অনিয়ম, ভোট কারচুপি, জালিয়াতির অভিযোগ এনে সকলের সম্মতিতে শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন ও নিরপেক্ষ অন্তবর্তী সরকারের দাবি জোরালো রূপ দেয়া।
রাজধানীর সন্নিকটস্থ নারায়নগঞ্জ রাজনৈতিকভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন এলাকা। আওয়ামী লীগের ঘাঁটি এলাকা হিসেবেই নারায়নগঞ্জ বিবেচিত। এখানে বিএনপির অবস্থানও দুর্বল নয়। তবে বিগত অবরোধের সময় মারাত্মক হিংসাত্মক নৈরাজ্যকর কর্মকান্ডের দায়ে নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলায় পর্যুদস্ত দলটি। আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন এ অবস্থা কাটিয়ে উঠতে ভূমিকা রাখবে বলেই বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা মনে করেন। সরকার ও সরকারি দলের নেতা-কর্মীদের তাদের ভাষায় জনস্বার্থ বিরোধী আচরনে মানুষ যে কতটা অসন্তষ্ট ক্ষুব্ধ নির্বাচনে তারও বহি:প্রকাশ ঘটবে। দলের সাংগঠনিক দুর্বলতা ও কৌশলগত কারনেই বিএনপি সরকার বিরোধী কঠোর কোন কর্মসুচিতে যাচ্ছেনা। ঢাকাসহ সারাদেশে বিএনপির ডাকা বিক্ষোভ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচি সফল হয়নি। রাজধানীর কোথাও নেতা-কর্মীদের দেখা পাওয়া যায়নি। নারায়নগঞ্জেও এর ব্যতিক্রম ছিলনা। নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষনার পর কর্মসুচি ব্যাপক সফলতা লাভ করবে বলেই ধারণা করা হয়েছিল। কিন্তু তা হয়নি। সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নেতা-কর্মীরা অনেক বেশি সক্রিয় হবেন এবং তারা ভোটারদের কাছে যেতে পারলে জনমত তাদের পক্ষে আসবে বলেই বিএনপির নেতাদের বিশ্বাস। নারায়নগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বে প্রকট আকারের দ্বন্দ্ব রয়েছে। বিএনপির তার সুযোগও নিতে পারবে বলেই দলটির নেতারা মনে করেন। আর ফলাফল পক্ষে না এলে সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে সরকার বিরোধী জনমত সংগঠিত করতে পারবেন। গাজিপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়েও বিএনপির একইরকম অবস্থান ছিল। ফলাফল ঘোষণার এক ঘন্টা আগেও দলটির পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশন ও সরকারের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস, কারচুপি, জালিয়াতির অভিযোগ আনা হয়। পরে তাদের প্রার্থী জয়ী হলে এ নিয়ে কোন কথাই বলেনি।
বর্তমান মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভীর কর্মী সমর্থকরা আইভীকে যথেষ্ট জনপ্রিয় এবং নির্বাচনে জয়লাভের সম্ভাবনাময় মনে করছেন। কিন্তু ডা. আইভী এরিমধ্যে ঘোষণা করছেন, দলের সিদ্ধান্তের বাইরে যাবেন না তিনি। অর্থাৎ দল তাকে মনোনয়ন না দিলেও তিনি স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচন করবেন না। আইভীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকার পরও স্থানীয় সরকার বিভাগ বিষয়টি এগুতে দেয়নি। চেপে রেখেছে। আইভী বাড়াবাড়ির করতে গেলে ঝুঁকি নিয়েই করতে হবে। তাঁর রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ স্থানীয় এমপি শামীম ওসমান নারায়নগঞ্জে এবং কেন্দ্রে যথেষ্ট প্রভাবশালী। সেভেন মার্ডার কেসের প্রধান আসামী নুর হোসেনকে কেন্দ্র করে শামীম ওসমানের নামে নানা কথাও উঠে। শামীম ওসমানের অনুসারীদের মতে, এসবই আইভীর লোকজনের পরিকল্পিত প্রচারনা। শামীম সে অবস্থা কাটিয়ে উঠেছেন এবং নারায়নগঞ্জে তিনি এখন অপ্রতিরোধ্য। তবে নারায়গঞ্জের নিরীহ, শান্তিপ্রিয় মানুষ সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর কবলমুক্ত হতে চায়। নির্বাচনী সুযোগে ব্যবহার করতে তারা দ্বিধান্বিত হবেন না।

এডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকারকে বিএনপির মনোনয়নের বিষয় চূড়ান্ত বলেই নেতারা জানান। তৈমুর দলের জন্য নিবেদিত প্রাণ। গত সিটি নির্বাচনে তিনি প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন। শেষ মুহুর্ত্বে দল সরে দাঁড়ানোয় তিনিও ব্যথিতচিত্তে নির্বাচনী মাঠ থেকে সরে দাঁড়ান। নারায়নগঞ্জে তাঁর অবস্থান তিনি ধরে রেখেছেন। দলের কর্মীরা সকল বাধা বিপত্তি ডিঙ্গিয়ে একযোগে কাজ করলে নিশ্চিতভাবেই লড়াই হবে প্রবল। অপরদিকে মেয়র ডা. আইভী আওয়ামী লীগের একটি অংশের নেতৃত্ব আছেন। বড় অংশ শামীম ওসমানের হাতে। শামীমের সাথে আইভীর দ্বন্দ্ব চরমে। রাজনৈতিক নির্দেশে শামীম ওসমান আইভীর পক্ষে থাকলেও তার কর্মীদের ভূমিকা নিয়ে আইভীর সন্দেহ সংশয় থেকেই যাবে। মেয়র হিসেবে উন্নয়নমূলক কাজ করে খ্যাতি যেমনি অর্জন করেছেন, বিপরীত দিকটাও কম নয়। প্রতিশ্রুত অনেক কাজই করতে পারেননি। তাঁর কর্মীদের আচরনেও সন্তষ্ট নয় অনেকে। নিরপেক্ষ প্রভামুক্ত নির্বাচন হলে তার বিজয় গত নির্বাচনের মত সহজসাধ্য নাও হতে পারে। লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি এমনই মনে করছেন  নারায়নগঞ্জের অনেক ভোটার।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here