বাংলাদেশ সেমি-ফাইনালে খেলার স্বপ্ন দেখছেন

0
80

মো. মজিবুর রহমান ॥ ভারতের শিলিগুড়িতে ২৬ ডিসেম্বর থেকে ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে সাফ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপের চতুর্থ আসর। এই আসরে অংশ নিবে বাংলাদেশ মহিলা জাতীয় ফুটবল দল। আর বাংলাদেশ দলকে এই টুর্নামেন্টে স্পন্সর করছে ওয়ালটন।
ভারত যাওয়ার আগে গতকাল বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন, সহ-অধিনায়ক মাইনু মারমা ও প্রধান কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটন আনুষ্ঠানিক এক সংবাদ সম্মেলন দলের বিভিন্ন দিক নিয়ে কথা বলেন। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এই সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন সাফে বাংলাদেশ দলের পৃষ্ঠপোষক ওয়ালটন গ্রুপের স্পোর্টস এন্ড ওয়েলফেয়ার বিভাগের প্রধান এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন), বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও নারী শাখার চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণ, বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ ও ওয়ালটনের এজিএম মেহরাব হোসেন আসিফসহ অন্যান্যরা। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় বাংলাদেশ দলের প্রথম লক্ষ্য আফগানিস্তানকে হারিয়ে সেমি-ফাইনাল খেলা। এরপর প্রতিপক্ষ অনুযায়ী কৌশল নির্ধারণ করে ফাইনাল খেলা। এ বিষয়ে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন বলেন, ‘আমাদের গ্রুপের দুটি দল ভারত ও আফগানিস্তান খুবই শক্তিশালী। যেহেতু আফগানিস্তানের সঙ্গে আমাদের প্রথম ম্যাচ, সেহেতু আমাদের টার্গেট হবে আফগানিস্তানকে হারিয়ে সেমি-ফাইনাল নিশ্চিত করা। এরপর ফাইনালে যে দল আসবে তাদের বিপক্ষে খেলার জন্য কৌশল নির্ধারণ করা। আমরা আমাদের সেরাটা দিয়ে খেলার চেষ্টা করব। ইনশাল্লাহ ভালো কিছু দিতে পারব।’
দলের প্রস্তুতির বিষয়ে বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটন বলেন, ‘আমাদের প্রস্তুতি কিন্তু সেপ্টেম্বর মাসেই শুরু হয়েছে। এরপর নভেম্বর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে আমরা সাফের জন্য প্রস্ততি শুরু করি। আমাদের প্রস্তুতি ভালো। আমরা আমাদের দলের বেশ কয়েকজন সিনিয়র খেলোয়াড়কে (তাদের ব্যক্তিগত কারণে) নিতে পারছি না। সাফের জন্য ১৫ জন তরুণ ও ৫ জন অভিজ্ঞ খেলোয়াড় নিয়ে দল গঠন করা হয়েছে। ১৫ জন তরুণ খেলোয়াড়দের মধ্যেও প্রায় দশজনের অভিজ্ঞতা রয়েছে। আমাদের গ্রুপের দুটি দলই বেশ শক্তিশালী। ভারতের সঙ্গে হয়তো জয় পাওয়া কঠিন হবে। তবে তাদের বিপক্ষে লড়াই করতে পারবে আমাদের মেয়েরা। আমরা চাই আফগানিস্তানের বিপক্ষের ম্যাচটি জিতে সেমি-ফাইনাল নিশ্চিত করতে। এরপর ধাপে ধাপে কৌশল নির্ধারণ করে এগিয়ে যেতে।’
এদিকে বাংলাদেশ দলের জন্য পুরস্কার ঘোষণা করেছে পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন। পুরস্কারের বিষয়ে ওয়ালটন গ্রুপের স্পোর্টস এন্ড ওয়েলফেয়ার বিভাগের প্রধান এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন) বলেন, ‘আমি মনে করি আমাদের দলটি যথেষ্ট শক্তিশালী। যদিও ভারত ও আফগানিস্তানের খেলোয়াড়রা অনেক অভিজ্ঞ। তারপরও আমার বিশ্বাস তরুণ ও অভিজ্ঞদের সম্মিলনে গঠিত দলটি ভালো কিছু করতে পারবে। বাংলাদেশ দল যদি সাফে চ্যাম্পিয়ন হতে পারে তাহলে দলের প্রত্যেককে ওয়ালটনের একটি করে ১০ সিএফটির ফ্রিজ দিব। আর যদি রানার্স-আপ হয় তাহলে প্রত্যেককে একটি করে ওয়ালটনের ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভি দিয়ে উৎসাহিত করব। এ ছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন বাফুফের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও নারী শাখার চেয়ারম্যান মিস মাহফুজা আক্তার কিরণ।
সাফে ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ শক্তিশালী ভারত ও আফগানিস্তান। ২৯ ডিসেম্বর প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। আর ৩১ তারিখ দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশ খেলবে স্বাগতিক ভারতের বিপক্ষে।
এর আগে বাংলাদেশ সাফের তিনটি আসরে অংশ নিয়েছিল। তার মধ্যে ২০১০ সালে ঘরের মাঠে সেমি-ফাইনাল খেলেছিল। ২০১২ সালে শ্রীলঙ্কার অনুষ্ঠিত সাফে অবশ্য গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। আর ২০১৪ সালে পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে সেমি-ফাইনালে খেলেছিল বাংলাদেশ দল। আগের তিন আসরেরই শিরোপা জিতেছে ভারত। এবার সেই ভারতের সঙ্গে একই গ্রুপে রয়েছে বাংলাদেশ।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here