খাগড়াছড়িতে ট্রাক চাপায় নিহত ৮

0
233

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: নিয়ন্ত্রণহীন ট্রাকের চাপায় খাগড়াছড়ির আলুটিলায় দুই এসএসসি পরীক্ষার্থীসহ আটজন নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন আরও অন্তত ১৪ জন। মাটিরাঙা থানার ওসি সাহাদাত হোসেন টিটু জানান, গতকাল বেলা পৌনে ১১টার দিকে আলুটিলা পর্যটনকেন্দ্রের কাছে খাগড়াছড়ি-মাটিরাঙ্গা সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- মহালছড়ির চৌংড়াছড়ি এলাকার নেইম্রা মার্মা (৪০), উচনু মার্মা  (১৮),  চাইথোয়াই প্রু মারমা, পুলু মার্মা (১৬), উক্রাচিং মার্মা, টুনটুনি মারমা, অংক্যচিং মারমা ও ববি মারমা (৩০)।
এদের মধে?্য চাইথোয়াই প্রু মারমা ও অংক্যচিং মারমা  মহালছড়ি পাইলট স্কুল থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছিল। খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক নয়নময় ত্রিপুরা জানান, দুর্ঘটনার পরপরই তার হাসপাতালে সাতজনের লাশ নেওয়া হয়। ট্রাকচাপায় তাদের দেহের বিভিন্ন অংশ থেঁতলে গিয়েছিল। আহত অবস্থায় ১৫ জনকে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে নেওয়ার পর গুরুতর অবস্থায় দুজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকালে ববি মারমার মৃত্যু হয় বলে চট্টগ্রাম মেডিকেল ফাঁড়ি পুলিশের পরিদর্শক জহিরুল ইসলাম জানান। রনি মারমা নামে আরও একজন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, মাটিরাঙা উপজেলার আলুটিলা সাংসক নগর বৌদ্ধ বিহারের ধর্মগুরু ভদন্ত চন্দ্রমণি মহাস্থবিরের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বিভিন্ন এলাকা থেকে কয়েক হাজার মানুষ ওই এলাকায় জড়ো হয়েছিলেন। বিহারে উপরে ও নিচে মানুষের ঢল নামার পাশাপাশি সড়কের পাশে মেলার মত দোকান বসিয়েছিলেন অনেকে। চট্টগ্রাম থেকে পাথর নিয়ে খাগড়াছড়ি যাওয়ার পথে বিহার এলাকায় এসে ট্রাকটির চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে তার গাড়ি রাস্তার পাশে এক ঝালমুড়ি বিক্রেতাকে ঘিরে তৈরি হওয়া ভিড়ের মধ্যে উঠে যায়। এতে হতাহতের ঘটনা ঘটে বলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান। মাটিরাঙার ওসি জানান, চালকের সহকারী মো. সেলিম ট্রাকটি চালাচ্ছিলেন। তাকে আটক করেছে পুলিশ। সুরতহাল শেষে নিহত সাতজনের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে সদর থানার এসআই জানিয়েছেন।
এদিকে দুর্ঘটনার খবর শুনে প্রথমে ঘটনাস্থল ও পরে হাসপাতালে যান স্থানীয় সাংসদ কুজেন্দ্রলাল ত্রিপুরা। খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসন, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ ও খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের পক্ষ থেকে হতাহতদের জন?্য আর্থিক সহায়তার ঘোষণা দেওয়া হয়। জেলা পরিষদ সদস্য মংশৈ প্রু চৌধুরী অপু জানান, নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে সাত হাজার টাকা এবং আহতদের পাঁচ হাজার টাকা করে দেবেন তারা। আর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারের জন্য দেওয়া হবে পাঁচ হাজার টাকা করে। খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়ন নিহতদের পরিবারকে সাত হাজার টাকা করে এবং আহতদের তিন হাজার টাকা করে দেবে বলে জানিয়েছে।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here