আশুলিয়ার কৃতি সন্তান রুহুল আমিন মন্ডল এলাকার উন্নয়নে এক নিবেদিত প্রাণ

0
1633

আশুলিয়া প্রতিনিধি: আশুলিয়া  ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রিয় মেম্বার মন্ডল  পরিবারের কৃতি সন্তান  রুহুল আমিন মন্ডল সমাজ সেবা ও এলাকার উন্নয়নে গনমানুষের কাছে এক নিবেদিত প্রাণ। তরুন উদিয়মান সদ্য ৮নং ওয়ার্ডে ইউপি নির্বাচিত সদস্য রুহুল আমিন এলাকার দুস্থ দরিদ্র অসহায় মানুষের কল্যানে কাজ করে অল্প সময়ে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন।
তার সেবা মুলক কর্মকান্ডে সাধারন মানুষ সন্তুষ্ট বলে জানাযায়। গত  ইউপি নির্বাচনে তিনি বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন। তার এলাকায় রাস্তাঘাট কালভাট উন্নয়ন ও কাবিখার কর্মকান্ড সৎ ভাবে পরিচালিত হয়েছে।এছাড়া ইউপি থেকে তার ওয়ার্ডে বয়সক ভাতা, বিধবা ভাতাসহ নানা রকম জনকল্যাণের সুবিধার বিষয়ে তিনি নিরলস ভাবে কাজ করেন।
তার কাছে কোন রকম স্বজনপ্রীতি নেই।সবাইকে সমান ভাবে মুল্যায়ন করে থাকেন।এলাকার স্কুল, মসজিদ মাদ্রাসা,এতিমখানার উন্নয়নে তিনি অবদান রাখেন।এলাকার সাধারন মানুষের কাছে খোজ নিয়ে যানতে পারি তিনি জনস্বার্থে  কাজ করেন।তার চিন্তা চেতনায় মানুষের কল্যাণে কাজ করার ব্যাপক উৎসাহ রয়েছে।
গত কিছু দিন পুর্বে সরকার কত্তৃক ১০ টাকা মুল্যের চাউল বিতরণে তিনি গরীব অসহায় মানুষ যেন চাউল পায় সে জন্য নিজে  গিয়ে কার্ড দিয়ে সাধারন মানুষকে সাথে নিয়ে চাউল নিয়ে দেয়।এছাড়া যে কোন দুঃস্থ পরিবারের সুখে দুঃখে তিনি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন।
এছাড়া এলাকার যুব-সমাজকে বিপথ থেকে সরিয়ে আনতে তিনি মাদক নিমুলে ব্যাপক অভিযান পরিচালনা করছেন।গত ২রা ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার এলাকার জনগণকে সাথে নিয়ে মাদক স¤্রাট সুলতানের মাদক বানিজ্য বন্ধ করে দেয় এবং সেখান থেকে বিপুল পরিমান চুলা মদ সরঞ্জামাদি উদ্ধার করে ডিবি  পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।এসময় ইউপি চেয়ারম্যান  শাহাব-উদ্দিণ উপস্থিত ছিলেন।
রুহুল  আমিন মন্ডল, বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিনের অনুসারী তার নির্দেশনা ও সহচর হিসাবে কাজ করতে চান।
এছাড়া বঙ্গবন্ধুর আর্দশে অনুপ্রানীত হয়ে রাজনীতির সাথে জড়িত রয়েছেন। দলের প্রয়োজনে সব সময় ছুটে যান । তার স্বপ্ন জননেত্রী গণতন্ত্রের মানষকন্যা বিশ্বনেতা সফল প্রধানমন্ত্রী ডিজিটেল  বাংলাদেশের রুপকার শেখ হাসিনার আর্দশ ও স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করা। এবং এলাকার মানুষ যেন সুখে ও শান্তিতে থাকে এলাকার সর্বস্তরে উন্নয়ন হয়  সেই জন্য তিনি নিরলস ভাবে কাজ করার অঙ্গীকার করেন।

Share on Facebook