‘মন্ত্রণালয়গুলোর সক্ষমতা ছাড়া বাজেট বাস্তবায়ন অসম্ভব’

0
165

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিপিডির সম্মাননীয় ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেছেন, ‘আমাদের দেশের প্রধান মন্ত্রণালয়গুলোর সক্ষমতা যদি না থাকে তাহলে বাজেট প্রণয়ন ও বাজেট বাস্তবায়ন অসম্ভব।’
একই সঙ্গে তিনি তুলনামূলক কর্মহীন প্রবৃদ্ধিতে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।
শনিবার রাজধানীর লেক শোর হোটেলে আয়োজিত বাজেট সংলাপে তিনি এই মন্তব্য করেন। বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিড) অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক ফাহমিদা খাতুন।
দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, ‘বাংলাদেশে যদি প্রবৃদ্ধি ৬ শতাংশ বা ৭ শতাংশের বেশি হয় তারপরও সমস্যা কোথায়? সমস্যাটা হচ্ছে, দেশে ব্যক্তিখাতের বিনিয়োগ ওই প্রবৃদ্ধিকে চাঙ্গা করতে পারছে না। এখানে সমস্যা হচ্ছে, এ প্রবৃদ্ধির ভিতরে ব্যক্তিখাতের বিনিয়োগ যতটুকু আসা দরকার ছিল সেটা আসে নাই। এটা বড় কাঠামোগত সমস্যা।’
তিনি বলেন, ‘দ্বিতীয় কাঠামোগত সমস্যা হলো, আমরা তুলনামূলক কর্মহীন প্রবৃদ্ধির দিকে যাচ্ছি কি না। এত প্রবৃদ্ধি নিয়েও কেন বেকার সমস্যা সমাধান করতে পারছি না।’
দেবপ্রিয় বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে যতটা সংখ্যার দিকে নজর দেওয়া হয়েছে, ঠিক ততটুকু গুণমানের দিকে নজর দেওয়া হয়নি। প্রতিটি বিনিয়োগ কতটুকু সুবিধা নিয়ে আসতে পারে সে বিষয়ে কাঠামোগত চিন্তাভাবনা বা প্রশাসনিক কাঠামো দাঁড় করাতে পারিনি।’ তিনি বলেন, ‘পুরো বাজেট কাঠামোতে গুণমানসম্পন্ন প্রকল্প ও বিনিয়োগ ইত্যাদি রেখে এর বাস্তবায়ন একটা বড় চ্যালেঞ্জ। বাজেট বাস্তবায়নে সহায়ক পরিবেশ দরকার। কিন্তু বাজেট বাস্তবায়নে সুশাসনসহ অন্যান্য সেক্টরে সহায়ক পরিবেশ লক্ষ্য করা যায়নি। মূল মন্ত্রণালয়গুলোর সক্ষমতা যদি না থাকে তাহলে বাজেট প্রণয়ন ও বাজেট বাস্তবায়ন অসম্ভব। বাজেটে নেতৃত্বদানকারী মন্ত্রণালয় অর্থ মন্ত্রণালয়কে প্রযুক্তিগতসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় বা বিভাগের সঙ্গে সমন্বয় করে সক্ষম রূপে দেখিনি। এক্ষেত্রে অর্থ মন্ত্রণালয়সহ অন্যান্য মন্ত্রণালয়েরও সেরকম সংস্কার দেখিনি।’
সংলাপে ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আমি মনে করি ভ্যাটের প্রয়োজনীয়তা আছে। দেশের উন্নয়নে ভ্যাট দরকার আছে। তবে দেশের সুশাসন ও গণতন্ত্র না থাকলে যতই অর্থ থাকুক না কেন সেটা দেশের কাজে আসবে না।’
তিনি বিড়ি-সিগারেটের ওপর করে হার বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়ে বলেন, ‘সবচেয়ে কম সিগারেটের দাম ১৫ টাকা দেওয়া উচিত। অর্থাৎ যে টাকা দিয়ে একটা মানুষ পাউরুটি ও চা খেতে পারে। এতে সরকার বড় ধরনের রাজস্ব পেতে পারে।’
সংলাপে আরো উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, অর্থ মন্ত্রণালয়সংক্রান্ত স্থায়ী কিমিটির সভাপতি ড. আবদুল রাজ্জাক ও সিপিডির চেয়ারম্যান প্রফেসর রেহমান সোবহান প্রমুখ।

Share on Facebook

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here