admoc
Kal lo

,

admoc
Notice :
«» সোনারগাঁওয়ে বিনামূল্যে চিকিৎসা দিচ্ছেন ডা. মাহমুদা আক্তার «» অর্থের অভাবে সম্পন্ন হচ্ছে না বাউফল পৌরসভার একাধিক প্রকল্প «» ধামরাইয়ে কালামপুর বাজার বণিক সমিতির ফুটবল খেলা টাইব্রেকারে জয় বাংলা একাদশ «» বিএনপিকে পরাজিত করে বিজয়ী হব : কাদের «» আন্তর্জাতিক তথ্য-উপাত্ত বলছে পৃথিবী সম্পূর্ণ উল্টোপথে হাটছে পৃথিবীতে রাত হারিয়ে যেতে বসেছে «» প্রাথমিক সমাপণী পরীক্ষার প্রশ্নে ভুল দায় কার-দায়ী কে? «» বারী সিদ্দিকী আর নেই «» রোহিঙ্গাদের নিরাপদে ফেরার পরিস্থিতি এখনও হয়নি : জাতিসংঘ «» জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্টের শপথ গ্রহণ «» গাজীপুরে রেল ক্রসিংয়ে ট্রাক সংঘর্ষ ট্রেনের সহকারী চালক নিহত

নির্বাচনকালে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নির্বাচন কমিশনের হাতে দেয়ার পরিকল্পনা

k8pjho28

নিজস্ব প্রতিবেদক : নির্বাচন সংক্রান্ত জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল সরকারের যে কোন রকম প্রভাব, হস্তক্ষেপমুক্ত নিরপেক্ষ নির্বাচনের পূর্ন নিশ্চয়তা চেয়েছে নির্বাচন কমিশনের কাছে। নির্বাচন কমিশন থেকে বিষয়টি তাদের পক্ষে সম্ভব বলে বলা হলেও শর্ত সাপেক্ষ বলে জানিয়েছেন। শর্ত হচ্ছে সরকার ও রাজনৈতিক দলসমূহের কাছ থেকে কাঙ্খিত সহযোগিতা পাওয়ার নিশ্চয়তা। তারা একথাও জানিয়েছেন এ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত স্থানীয় সরকার সংস্থা সমূহের নির্বাচনে কমিশনে সরকারের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা পেয়েছে। আগামী সংসদ নির্বাচনেও সরকারের তরফে সবরকম সহযোগিতার আশ্বাস দেয়া হয়েছে বলে জানান হয়েছে।
নির্বাচনে যারা অংশ নেবেন সরকারের এই সহযোগিতা দেয়ার বিষয়টির উপর প্রচন্ড রকম অবিশ্বাস রয়েছে তাদের। সাধারনভাবে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচন দেখানো হলেও নির্দিষ্ট সংখ্যক আসনে সরকার কৌশলে ইঞ্জিনিয়ারিং করবে এবং নির্বাচন কমিশন তা প্রতিরোধে যথাযথ ভূমিকা নেয় কিনা তা নিয়েও তাদের সংশয় রয়েছে। আগামীতে যে কোন কৌশলে ক্ষমতায় আসার পরিকল্পনা সরকারের। বিএনপির পক্ষ থেকে এ সংশয়, শঙ্কার কথা জাতিসংঘ প্রতিনিধিদের জানান হয়েছে। শুধু বিএনপিই নয়, আরো কয়েকটি রাজনেতিক দল, কয়েকটি নির্বাচন পর্যবেক্ষন দল, এনজিও, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি হিসেবে পরিচিত কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তি সাবেক কূটনীতিক জাতিসংঘ টিমের কাছে অভিন্ন মনোভাব ব্যক্ত করেছেন। বিএনপি ছাড়াও গণফোরাম সভাপতি ড.কামাল হোসেন, সাবেক প্রেসিডেন্ট ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী, সাবেক উপদেষ্টা ড. আকবর আলী খান, হাফিজউদ্দিন আহমেদ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিয়োজিত সাবেক রাষ্ট্রদূত হুমায়ুন কবীরসহ আরো কয়েকজনের সঙ্গে তারা কথা বলেছেন। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড.খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ড. আবদুল মঈন খান, আবদুল আউয়াল মিন্টুর সঙ্গে আলাদাভাবে বৈঠক করেন তারা। নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায, বিএনপির পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন কমিশনের পক্ষে সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব হবেনা বলে স্পষ্ট জানান হয়। তারা এই কমিশনের নিরপেক্ষতা নিয়েও প্রশ্ন রাখেন। শেখ হাসিনার স্থলে ক্ষমতাসীন দলের মধ্য থেকেই তাদের পছন্দের দ্বিতীয় কাউকে অন্তবর্তী সরকার প্রধানের দায়িত্ব অর্পন, স্বরাষ্ট্র, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের কাছে দেয়া এবং সেনাবাহিনীকে ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দেয়ার প্রস্তাব করেন। এখন থেকেই লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির প্রয়োজনীয়তার কথা বলেন। বিদ্যমান সাংবিধানিক ব্যবস্থায়ই এসব সম্ভব বলে উল্লেখ করা হয়। বিকল্প ধারার একজন নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, প্রফেসর বি.চৌধুরী শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে অংশ নিতে অনাপত্তির কথা জানিয়েছেন। তবে নির্বাচন কমিশনের অধীনে কয়েকটি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের কাছে অর্পন, বিরোধী শিবির থেকে নির্বাচনকালীন সরকারে মন্ত্রী নেয়ার কথা বলেন। ডেমোক্রাসি ওয়াচ নির্দলীয় সরকার গঠনের কথা বলেছে বলে জানা যায়।  জাতিসংঘের পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন জাতিসংঘের ইলেকট্ররাল এ্যাসিটেন্স কার্যালয়ের পাবলিক আউটরিচ এডভাইজার সভেতলানা গালকিনা। জাতিসংঘ প্রতিনিধি দল ২৫শে জুলাই ঢাকা আসেন। বিএনপির পক্ষ থেকে তাদেরকে ৫ই জানুয়ারির নির্বাচনের আগে জাতিসংঘের তৎকালীন মহাসচিবের বিশেষ দূতের সাথে আওয়ামী লীগ, বিএনপির বৈঠকে দ্রুত নতুন নির্বাচনের সম্মত সিদ্ধান্তের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়া হয়। বিএনপি সূত্রে জানা যায়, জাতিসংঘ মহাসচিব এ ব্যাপারে পরবর্তীতে সরকারের সাথে কথা বলবেন এবং তারই পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে তারা এসেছেন বলে জানান হয়। বিদ্যমান সাংবিধানিক ব্যবস্থায় ব্যতয় ঘটিয়ে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠানে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক মহল সরকারের উপর তেমন কোন চাপ সৃষ্টি করতে পারবেনা বলেই সরকার দলীয় নেতৃবৃন্দ আস্থাশীল। তবে সাংবিধানিক ব্যবস্থার মধ্যে থেকে একটা সমঝোতার পথ করা হবে। এতে শেষ পর্যন্ত সরকারকে কিছু ছাড় দিতে হবে। স্বরাষ্ট্রের মত সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ও সরাসরি নির্বাচন কমিশনের হাতে ছেড়ে দেয়াসহ আরো কিছু পদক্ষেপ নেয়া হবে।

Share Button
Share on Facebook

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী