admoc
Kal lo

,

admoc
Notice :

রৌমারীতে ব্রীজ ও রাস্তা সংস্কারের দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

Untitled-3

রৌমারী (কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধি: গতকাল ১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ১১ ঘটিকায় কুড়িগ্রাম জেলার ব্রম্মপুত্র পুর্বপাড় ভারতীয় আসাম সীমান্ত ঘেষা রৌমারী উপজেলার সদরে চলাচল শাপলা চত্তর থেকে সবুজ পাড়া
তে সীমান্ত এলাকার প্রায় ১০টি গ্রামের যাতায়াত সংযোগ সড়কে অপরিকল্পিত, অনিয়ম ও দুর্নীতির কারনে স্লুইজ গেট নির্মানে সমস্যায় পড়ে এলাকাবাসী। বন্যায় ভাঙ্গন সুতির পাড়া স্লুইজগেট সংলগ্নতে ব্রীজের দাবী ও সংযোগ সড়কের বেহাল দশায় ১০টি গ্রামের মানুষের বিক্ষোভে রৌমারী উপজেলা প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে উপজেলা চত্তরে ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা সিনিয়র সহসভাপতি শহিদুল ইসলাম শালুর আহ্বানে এক মানব বন্ধন করেন।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, রফিকুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক মুজিব নগর লীগ রৌমারী, প্রভাষক জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, আসাদুজ্জামান আসাদসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
আহ্বায়ক চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বক্তব্যে বলেন, রৌমারী সদর থেকে সীমান্ত এলাকার ১০টি গ্রামের যাতায়াতের সংযোগ সড়কটির মাঝি পাড়ার সামনে স্লুইজ গেট সংলগ্ন বন্যায় ভাঙ্গন রোধে একটি ব্রীজ নির্মান ও সংযোগ সড়ক গুলি সংস্কার করার লক্ষে আমি উপজেলায় এই এলাকাবাসীর যাতায়াত দুর্দশার জন্য বারবার বিভিন্ন অফিস আদালতে কাগজ পত্র দিয়ে কথা বলেছি, কোন কাজ হচ্ছে না। আজ এলাকাবাসীর দুর্দৃশা ভোগান্তি থেকে রক্ষার উদ্দ্যেশে বাধ্য হয়েছি বিক্ষোভ, মানববন্ধন ও উপজেলা নির্বাহী বরাবরে স্বারক লিপি প্রদান করতে। । অপর দিকে অপরিকল্পিত ভাবে স্লুইজ গেট নির্মানে বন্যার পানিতে রাস্তার উত্তর পাশে থাকা প্রায় ১০ টি গ্রামের মানুষের রোপা আমন শাক সবজী হাজার হাজার হেক্টর জমির ফসল বিনষ্ট হয়ে যায় এবং হাজার হাজার মানুষ পানি বন্দি থাকে। স্লুইজ গেটের পাশে বন্যার তীব্র পানির চাপে সড়কটি বার বার ভেঙ্গে যায়। এলাকবাসীর দাবী স্লুইজ গেট সংলগ্ন ভাঙ্গন যায়গায় পরিকল্পিত ভাবে একটি ব্রীজ নির্মান ও সড়ক সংস্কার প্রয়োজন।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে রৌমারী দাঁতভাঙ্গা হতে ঢাকা গামী একমাত্র যোগাযোগ এফসি সড়ক (ডিসি) রাস্তা দাঁতভাঙ্গা হতে রাজিবপুর উপজেলার শেষ, এবং জামালপুর উপজেলার প্রথম মাথা পর্যন্ত কার্পেটিং ্উঠে গিয়ে খানা খন্দের সৃষ্টি হয়ে ও দু’পাশে স্লোপ ভেঙ্গে এবং ২০১২ সালের ২য় বারের বন্যায় ঝগড়ারচর নামক স্থানে এফসি (ডিসি) রাস্তা ভাঙ্গনে যাতায়াতের বেহাল সৃষ্টি হয়েছে।
দাঁতভাঙ্গা হতে ধর্মপুর পর্যন্ত ব্রীজ ভাঙ্গন কার্পেটিং, ইটখোয়া, রৌমারী বাজার সদর হতে সুতিরপাড়া বামনেরচর খাটিয়ামারী পর্যন্ত রাস্তা ভাঙ্গন ইটখোয়া, কার্পেটিং. রৌমারী উপজেলা হতে কলেজ রোড ফলূয়ারচর পর্যন্ত রাস্তায় ব্রীজ ভাঙ্গন, ইটখোয়া, ও কার্পেটিং, থানা মোড় হতে মহিলা কলেজ রোড খঞ্জনমারা স্লুইজ গেট হয়ে রিপ-২ রাস্তা দাঁতভাঙ্গা শালুর মোড় পর্যন্ত ভাঙ্গন কার্পেটিং ইটখোয়া, মহিলা কলেজ মোড় হতে টাপুরচর রোড ইট খোয়া উঠে গিয়ে সকল সংযোগ সড়কের বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। যাতায়াতে জনদুর্ভোগ বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি যানবাহন চলাচলে ব্যাহত হচ্ছে। এলাকাবাসীর ভাষ্যে জানা যায় ১০/১৫ বছর পুর্বে ডিসি রাস্তা ও সংযোগ রাস্তা গুলি নির্মান এবং সংস্কার করা হয়।  কালভাটঁ ব্রীজ স্লুইজ গেট গুলিও ২/৮ বছর পুর্বে নির্মান করা হয়। এরপর থেকে ডিসি সড়ক ও সংযোগ সড়ক গুলি সংস্কারের দেখা নেই। তবে আমরা শুনেছি সড়ক ও জনপদ বিভাগ ও এলজিইডি বিভাগ থেকে সড়ক সংস্কারের কোটি কোটি টাকা দিয়েছে কিন্তু কোন কাজ দেখা যায়নি। সংস্কারের অভাবে সড়ক গুলির ইটখোয়া গুলি উঠে গিয়ে শতশত গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এবং সড়কের দু’পাশে ভেঙ্গে গিয়ে মানুষের যাতায়াত ও পরিবহনের চলাচলের দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। এবং ঝগড়ারচর নামক স্থানে পাকা সড়কটি ভেঙ্গে যাওয়ায় মেরামত না করার কারনে পথচারী সহ পরিবহন যানবাহনে দুর্ভোগের সীমা ছাড়িয়ে গেছে। অপর দিকে রৌমারী সদর হতে সুতির পার বামনেরচর সড়কে অপরিকল্পিত ভাবে স্লুইজ গট নির্মানে বন্যার পানিতে রাস্তার উত্তর পাশে থাকা প্রায় ১০ টি গ্রামের মানুষের রোপা আমন শাক সবজী হাজার হাজার হেক্টর জমির ফসল বিনষ্ট হয়ে যায় এবং হাজার হাজার মানুষ পানি বন্দি থাকে। স্লুইজ গেটের পাশে বন্যার তীব্র পানির চাপে সড়কটি বার বার ভেঙ্গে যায়। এলাকবাসীর দাবী স্লুইজ গেট সংলগ্ন ভাঙ্গন যায়গায় পরিকল্পিত ভাবে একটি ব্রীজ নির্মান প্রয়োজন। এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ মজিবুর রহমান জানান, এবারের বন্যায় মানুষ সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্থ্য হয়েছে। এবং ৬ টি ইউনিয়নের ৫ টি ইউনিয়নেই বেশী রাস্তাঘাট ভেঙ্গে মানুষ ও পরিবহন যাতায়াতে অনুপযোগী হয়েছে। এগুলি রাস্তাঘাট মেরামতের জন্য অতি তারাতারি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানোর কথা ইঞ্জিনিয়ার ও উপজেলা প্রশাসনকে বলা হয়েছে। উপজেলা প্রকৌশলী নাজমুল ইসলাম এর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান,এফসি (ডিসি) রাস্তাটি সংস্কারের জন্য সড়ক ও জনপদ বিভাগকে অবহিত করা হয়েছে এবং এলজিইডি বিভাগে সংযোগ সড়ক গুলি সংস্কার ও ব্রীজ কালভার্ট এর জন্য বরাদ্দ চেয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করা হয়েছে। অভিজ্ঞ মহল বলেন, সড়ক ও কালভার্ট ব্রীজ গুলি পরিকল্পিত ভাবে জরুরী ভিত্তিতে সংস্কারের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য সহ সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Share Button
Share on Facebook

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী